সিরিয়ায় কুর্দি বিদ্রোহীদের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে তুরস্ক। দেশটি বলছে, যুক্তরাষ্ট্র সন্ত্রাসীদের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার না করলে আঙ্কারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। আফ্রিনসহ সিরিয়ার উপদ্রুত এলাকাতেও অভিযান পরিচালনা করবে তুরস্ক।

বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান এরইমধ্যে একাধিক বার আফ্রিনের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। সিরিয়ার তুর্কি সীমান্তে কুর্দিদের নিয়ে ৩০ হাজার সদস্যের একটি বাহিনী মোতায়েনের মার্কিন সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছে আঙ্কারা।

এরদোয়ান বলেছেন, তুরস্কের দক্ষিণ সীমান্তে একটি সন্ত্রাসী সেনাবাহিনী গঠনের চেষ্টা করছে আমেরিকা। ওই বাহিনীকে অঙ্কুরেই ধ্বংস করে দিতে হবে। মার্কিন কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম খবর দিয়েছে, ৩০ হাজার সদস্যের ওই বাহিনীর প্রায় অর্ধেক সদস্য নিয়োগ দেওয়া হবে সিরিয়ায় তৎপর এসডিএফ-এর সদস্যদের মধ্য থেকে।

এসডিএফ হচ্ছে কুর্দি সংগঠন ওয়াইপিজি সমর্থিত একটি গোষ্ঠী। তুরস্ক ওয়াইপিজি-কে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে গণ্য করে। তুরস্কের উপপ্রধানমন্ত্রী বেকির বোজডাগ বলেছেন, মন্ত্রিসভা এ ব্যাপারে একমত হয়েছে যে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন পদক্ষেপ তুরস্কের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি।

তিনি বলেন, আমাদের সহ্যের সীমা শেষ হয়ে গেছে। আমাদের কাছ থেকে আর ধৈর্য আশা করা ঠিক হবে না। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন অবশ্য বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় কোনও সীমান্তরক্ষী বাহিনী গড়ে তুলছে না। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন বলেছে, ‘তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাটো মিত্র। তাদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা আমাদের বোধগম্য।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য