উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ভুল সতর্কবার্তায় আমেরিকার হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের পর এবার জাপানে তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এনএইচকের ভুল বার্তায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে জাপানিদের মাঝে। পরে অবশ্য এজন্য ক্ষমা চেয়েছে তারা।

এনএইচকে’র মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন থেকে মঙ্গলবার জনগণের কাছে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, “খুব সম্ভবত উত্তর কোরিয়া জাপানকে লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করতে যাচ্ছে। কাজেই জনগণ যেন অনতিবিলম্বে তাদের ঘরবাড়ি ত্যাগ করে।”

এই বার্তায় তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এরপর এনএইচকে থেকে প্রচারিত এক বার্তায় ভুল সতর্কতা জারি করার জন্য জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়া হয়।

এর আগে গত মঙ্গলবার আমেরিকার হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের অধিবাসীদের কাছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে একই ধরনের ভুল সতর্কবার্তা পাঠানো হয়। ‘ব্যালাস্টিক মিসাইল হুমকি হাওয়াইয়ের দিকে ছুটছে। দ্রুত আশ্রয় খুঁজে নিন। এটা কোনও প্রশিক্ষণ নয়।’ শনিবার সকালে মোবাইল ফোনে এই জরুরি সতর্ক বার্তা পান যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াই রাজ্যের বাসিন্দারা।

রেডিও আর টেলিভিশনের প্রচারিত হয় একই ধরনের সতর্কতা। এরপরই পুরো রাজ্য জুড়ে ভীতি ছড়িয়ে পড়ে। অবশ্য হাওয়াই দ্বীপের জরুরি ব্যবস্থাপনা বিভাগ কিছুক্ষণের মধ্যেই সতর্কবার্তাটি প্রত্যাহার করে নেয়।

২০১৭ সালের শেষ দিকে উত্তর কোরিয়া পুরো যুক্তরাষ্ট্র তাদের মিসাইলের আওতায় রয়েছে বলে হুমকি দেওয়ার পর হাওয়াইতে নতুন করে মিসাইল সতর্কতা সিস্টেম চালু করা হয়। ওই বছরের ডিসেম্বরে ওই সতর্কতা সিস্টেমের পরীক্ষাও চালায় যুক্তরাষ্ট্র।

এই দু’টি ঘটনায় উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রের ব্যাপারে জনমনে কী পরিমাণ আতঙ্ক বিরাজ করছে তার প্রমাণ পাওয়া যায় বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন। এই ঘটনাকে উল্লেখ করে পারমাণবিক অস্ত্রের ভয়াবহতার ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছেন ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিসও।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য