মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে এক বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে পুলিশের গুলিতে সাতজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১২ জন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিরোধপূর্ণ রাখাইনে মঙ্গলবার রাতে বৌদ্ধ আরাকানের রাজ্যের সমাপনী বার্ষিকীর এক উৎসবে জড়ো হয়েছিল স্থানীয়রা। উৎসব শেষে এটি সহিংস রুপ ধারণ করে। সরকারি ভবন ঘিরে বিক্ষোভ করতে থাকে বিক্ষোভকারীরা।

রাখাইন প্রদেশের মন্ত্রী তিন মং সোয়ে বলেন, কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনোরকম অনুমোদন না নিয়েই সবাই জড়ো হতে পারে। প্রায় ৪ হাজার মানুষ বার্ষিক এই উৎসব শেষে সরকারি ভবনে চলে আসে।

তিনি দাবি করেন, ‘প্রথমে পুলিশ রাবার বুলেট ব্যবহার করলেও কেউ যায়নি। অনেকে বন্দুক কেড়ে নেওয়ারও চেষ্টা করেছে। এরপর গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছে তারা।’

স্থানীয় এমপি তুন থের সেইন বলেন, কয়েকজন আহত বিক্ষোভকারীকে রাজধানী সিতেতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনে সহিংসতার পর রোহিঙ্গাদের ওপর নিধনযজ্ঞ জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা ও ধর্ষণ থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। জাতিসংঘ এই ঘটনাকে জাতিগত নিধনযজ্ঞের পাঠ্যপুস্তকীয় উদাহরণ বলে উল্লেখ করেছে। একে নিধনযজ্ঞ বলেছে যুক্তরাষ্ট্রও।

মিয়ানমারে ১৩৫টি স্বীকৃত জাতিগোষ্ঠীর বসবাস। অনেকদিন ধরেই সেখানে বিরোধপূর্ণ অবস্থা বিরাজ করছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য