আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে ভাতিজার কুড়ালের আঘাতে চাচী ধলি বেগম (৪৫) নিহত এবং ৩ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ঘাতক মুক্তার মিয়া শুকটুকে (১৮) পুলিশ আটক করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে উপজেলার বরিশাল ইউনিয়নের সাবদিন গ্রামের তোতা মিয়া সরকারের ছেলে মুক্তার মিয়া শুকটু নিজ বাড়ীতে পরিবারের সদস্যদের এলোপাথারি মারডাং করতে থাকে।

এসময় চাচী ধলি বেগম শুকটুকে থামানোর জন্য এগিয়ে গেলে শুকটু তার চাচী ধলির মাথায় কুড়াল দিয়ে চোট মারলে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

নিহত ধলি বেগম একই গ্রামের নজির হোসেনের স্ত্রী। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ ধলি বেগমের লাশ উদ্ধারসহ ঘাতক মুক্তার মিয়া শুকটুকে আটক থানায় নিয়ে আসে।

থানা অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল আলম জানান, ধলি বেগমের লাশ উদ্ধাসহ ঘাতক শুকটুকে আটক করা হয়েছে। কিন্তু স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, শুকটু ভারসাম্যহীন মানুষিক রোগী।

তার সঙ্গে কথা বলে সেরকমি মনে হয়েছে। তবে নিহতের পরিবার কোন প্রকার মামলা যেতে চাচ্ছে না। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা অন্তে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য