গ্রামবাংলার মানুষের চিরায়ত ঐতিহ্য হিসেবে কুয়াশাসিক্ত শীতেই বাঙালির ঘরে ঘরে পিঠা বানানোর ধুম পড়ে যায় আর শহুরে সমাজে সেই ঐতিহ্যের রীতিনীতিকে কিছুটা স্মরণ করিয়ে দিতে রংপুর চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রি কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত আরসিসিআই পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা দিনব্যাপী এ পিঠা উৎসবের আয়োজন করে।

স্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মাসুদ আহমেদ হায়দারের সভাপতিত্বে দিনব্যাপী এ পিঠা উৎসবের উদ্বোধন করেন আরসিসিআই পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজের সভাপতি ও রংপুর চেম্বারের প্রেসিডেন্ট মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোজতোবা হোসেন রিপন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চেম্বারের পরিচালকবৃন্দের মোঃ আশরাফুল আলম আল আমিন, আলহাজ¦ এমদাদুল হোসেন, মোঃ আজিজুল ইসলাম মিন্টু, মোঃ রিয়াজ শহিদ শোভন, মোঃ ওবায়দুর রহমান রতন, মোঃ আমজাদ হোসেন চৌধুরী, পার্থ বোস, খেমচাঁদ সোমানী রবি, মোঃ মোতাহার হোসেন মন্ডল মওলা, মোঃ শাহজাহান বাবু, দেবব্রত সরকার রঞ্জু, মোঃ হাবিবুর রহমান রাজা, প্রণয় বণিক ও অজয় প্রসাদ বাবন, সাবেক সহ-সভাপতি মোঃ মোজাম্মেল হক ডাম্বেল, সাবেক পরিচালক শাহ মোহাম্মদ সেলিম ও মোঃ ফজলুল হক।

দিনব্যাপী পিঠা উৎসবে নানা পিঠার সমাহার নিয়ে হাজির ছিল শিক্ষার্থীরা। স্টলগুলো ঘুরে দেখা গেল বাঙালি ঐতিহ্যের নানা রকম ভাপা, মুকশুলি, মসুর পাকন, চিকেন পুলি,নারিকেল দুধ পুলি, নারিকেল পুলি, গোলাপ ফুল পিঠা, আলুর পাকন পিঠা, বিবিআনা পিঠা, নারিকেল বিস্কুট পিঠা, বো টাই পিঠা, তেল পিঠা, ডিম সুন্দরী পাটিসাপটা, পাটিসাপটা, আনারকলি, দুধসাগর এবং চিতই পিঠার সমাহার।

উৎসবে শিক্ষার্থীদের ১৩টি স্টলের পিঠার সমাহার যেমন ঠিক তেমনি স্টলের নামের দেখা গেল বৈচিত্র্য। যেমন নাইন স্টার পিঠা হাউস, এসএসসি ২০১৮ ব্যাচ, বাঙালিয়ানা পিঠা ঘর, স্বদেশী পিঠা ঘর, পিঠা উৎসব ও পিঠা বাজার, স্বাদের খাওয়া পিঠা ঘর, পিঠা খানা, পৌষ পিঠা ঘর, নিমন্ত্রণ পিঠা ঘর, সুস্বাদু পিঠা ঘর, পিঠা ঘর, ফ্রি পিঠা ঘর। বাবা-মার সঙ্গে দলে দলে শিক্ষার্থীরা আসে আরসিসিআই পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজের পিঠা উৎসবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য