দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে শিশুকে ধর্ষনের পর অন্তসত্তা হওয়ার মামলার আসামীকে ৮ দিনেও গ্রেফতার হয়নি।

মামলা সূত্রে জানা যায় উপজেলার ভাদুরিয়া ইউনিয়নের পুটিহার(নওয়াপাড়া)গ্রামের লিটন মিয়ার মেয়ে ও মুরাদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীন ছাত্রী(১৩)কে প্রাইভেট পড়ার সময় একই গ্রামের সাইদুর রহমানের লম্পট ছেলে রবিউল ইসলাম গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় নানা প্রলোভন দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করে।

এরপর রবিউল তাকে একাধিক বার ধর্ষন করে এবং একথা কাউকে যেন না বলে সে বিষয়ে ভয় দেখায়। এমতাবস্থায় ধর্ষিতা শিশু গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর রাতে বমি করলে তার মায়ের সন্দেহ হয় এবং ষিয়টি তার পিতাকে জানায়।

পরে ডাক্তারী পরীক্ষা করে ওই ধর্ষিতা শিশু ৩ মাসের অন্তসত্তা হওয়ার প্রমান পায়। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার পিতা লিটন মিয়া বাদী হয়ে প্রলোভন দিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষন করার অভিযোগ আনয়ন করে গত ৭ জানুয়ারী রাতে নবাবগঞ্জ থানায় ১টি মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই শাহীন আলম জানান আসামীকে গ্রেফতারের জন্য জোর তৎপরতা চালানো হচ্ছে। সরকারী ভাবে ডাক্তারী পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য