নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় বালু মিশ্রিত একশত বস্তা নকল পটাশ সার উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার বিকালে উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য তসকিনা বেগমের বাড়ি হতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা: উম্মে ফাতিমা ওই একশত বস্তা বালু মিশ্রিত সার উদ্ধার করে ভ্র্যাম্যমান আদালতে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ মো: জাফর ইকবাল জানান, বালুতে রঙ মিশেয়ে নকল পটাশ সার তৈরী করা একশত বস্তা সার রবিবার রাতে একটি ট্রাকটরে করে হরিণচড়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত নারী সদস্য তসকিনা বেগমের স্বামি সার ব্যবসায়ী ওবায়দুর রহমান নিজের বাড়িতে গোপনে আনার সময় ট্রাকটরটি একটি পুকুরে পড়ে যায়। এতে পুকুড়ের পানি লাল হয়ে যায় এবং বস্তা হতে বালু বের হতে থাকে।

পরে ওই নকল সারগুলো পুকুড় থেকে তাদের বাড়ি নিয়ে যায়। সোমবার দুপুরে এলাকাবাসী এ খবর আমাদের জানায়। দ্রুত ইউএনও স্যার ও আমরা কৃষি দপ্তরের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নকল সার উদ্ধার করে মাটিতে পুতে রাখি। এ সময় তাদের নিকট হতে ভ্যাম্যামান আদালতের মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, নকল সারে সব বাজার সয়লাভ হয়ে গেছে। নকল সার প্রয়োগের ফলেই ক্ষেতে কঠোর পরিশ্রম করেও ভালো ফসল উসল উৎপন্ন হয় না। শুধু মাঝেমধ্যে জরিমানা ও সার জব্দ করার মধ্যে সিমাবদ্ধ থাকলে কৃষি প্রধান এ দেশ অন্যদেশের খাদ্যের উপর নির্ভরশীল হতে হবে বলে কৃষকরা বলেন। তারা দ্রুত অসাধু সার ব্যবসায়ী ও ডিলারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য