মোঃ লিহাজ উদ্দীন মানিক, বোদা (পঞ্চগড়) থেকেঃ পঞ্চগড় জেলার অডিটরিয়াম প্রাঙ্গনে শুরু হওয়া তিনদিনব্যাপী ‘উন্নয়ন মেলা-২০১৮’তে অংশ নিয়েছে বে-সরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। মেলায় সংস্থাটির বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচির পাশাপাশি অতিদরিদ্র কর্মসূচির কার্যক্রমের সাফল্যও তুলে ধরেছে। ব্র্যাকের স্টলে এই কর্মসূচির বিবরণ সম্বলিত পুস্তিকা, সহ¯্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এর ভূমিকা বিষয়ক লিফলেট, অতিদারিদ্র্য থেকে উত্তরণের পথ খুঁজে পাওয়া সফল পরিবারগুলোকে নিয়ে রচিত পুস্তিকা প্রদর্শন করা হয়েছে। ‘অতিদরিদ্র কর্মসূচি’ দারিদ্র্য বিমোচনে ব্র্যাক পরিচালিত একটি বিশেষ উদ্যোগ যার আওতায় অন্তর্ভুক্ত পরিবারগুলোকে দুই বছরব্যাপী নিবিড় ও সমন্বিত সহায়তা প্রদান করা হয়।

এর মাধ্যমে ২০০২ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত দারিদ্র্যপীড়িত ৪৭টি জেলার ১৭ লাখের বেশি পরিবারকে অতিদারিদ্র্য থেকে উত্তরণে সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ২০১৬ সালে পঞ্চগড় জেলায় সহায়তা পেয়েছে ১২৩৪টি অতিদরিদ্র পরিবার। ২০১৮ সালে এই জেলার ৫টি উপজেলায় অতিদরিদ্র কর্মসূচির কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। সরকারের সহযোগিতায় ঢাকাসহ দেশের ৬৪টি জেলায় একযোগে এই মেলা চলছে। এর লক্ষ্য বর্তমান সরকারের সময়ে নেওয়া বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের সঙ্গে দেশের প্রান্তিক জনগণসহ আপামর জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্ত করা।

উন্নয়নমূলক কর্মকা- ও দারিদ্র্য বিমোচনে সরকারের পাশাপাশি ব্র্যাকও সুদীর্ঘ সময় ধরে কাজ করছে। সেই সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে ব্র্যাক এই মেলায় অংশ নিচ্ছে। মেলার স্টল পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম। এছাড়া তাঁর কাছে ব্র্যাকের পক্ষ থেকে অতিদরিদ্র কর্মসূচির সামগ্রিক এবং জেলাভিত্তিক কার্যক্রম বিষয়ক তথ্যাবলী হস্তান্তর করা হয়েছে। এ সময় তিনি (জেলা প্রশাসক) বলেন, ব্র্যাকের অতিদরিদ্র কর্মসূচি মানুষকে দরিদ্রের বলয় থেকে বেড়িয়ে আনতে সরকারের পাশাপাশি করে যাচ্ছে।

ব্র্যাকের এই কর্মসূচির কাজ নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে। ব্র্যাকের ‘অতিদরিদ্র কর্মসূচি’র ‘গ্র্যাজুয়েশন অ্যাপ্রোচ’ এমন একটি কার্যকর মডেল যা ইতিমধ্যে বিশ্বে স্বীকৃতি লাভ করেছে। এই কর্মসূচি সম্পদ হস্তান্তর/সহজ শর্তে ঋণ, কারিগরি এবং হাতে-কলমে নিবিড় প্রশিক্ষণ, সঞ্চয়ের অভ্যাস তৈরি, স্বাস্থ্য সহায়ক কার্যক্রম, সমাজের মূল¯্রােতের সঙ্গে সম্পৃক্তকরণ ইত্যাদি কার্যক্রমের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে একটি অতিদরিদ্র পরিবারকে ভঙ্গুর আর্থসামাজিক অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটিয়ে উন্নয়নের মূলধারার সঙ্গে সংযুক্ত হতে সহায়তা করে। এ কর্মসূচিকে আরও এগিয়ে নিতে ২০২০ সালের মধ্যে দেশব্যাপী প্রায় সাড়ে ৪ লাখ অতিদরিদ্র পরিবারকে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে ব্র্যাক।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য