গতবছর এসএসসি পরীক্ষায় এক বিষয়ে অকৃতকার্য হয়। এ বছর ফরমফিলাপ করলেও লেখাপড়া ঠিকমত না করায় বাবা মেয়েকে লেখাপড়া করার জন্য চাপ দিলে বাবার উপর অভিমানে নীলফামারীর ডোমারে শিউলি রানী (১৬) নামে এক এসএসসি পলীক্ষার্থী গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

আজ সোমবার সকালে উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের হরিমন্দির ডাঙ্গাপাড়ায় ঘটনাটি ঘটে। নিহত শিউলি একই এলাকার ভুপতি রায়ের মেয়ে ও ডুগডুগি বড়গাছা উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

নিহত শিউলির বড়বোন রুপালি রানী জানান, আজ তার আমার বাড়ী সোনাহারে যাওয়ার কথা ছিল। সকাল আটটা নয়টার দিকে সে আমাকে ফোনে আমাদের খোজখবর নেওয়ার পর জানায় আজ সে আমারবাড়ীতে আসবে না। এর এক ঘন্টা পর ফোনে জানতি পারি সে গলায় দড়ি দিয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, রবিবার রাতে তার বাবার সাথে তার লেখাপড়া নিয়ে ঝগড়া বাধে। তার বাবা তাকে ভালোভাবে লেখাপড়া করতে পারে। রাতে সে খাওয়া দাওয়া করে ঘুমিয়ে পরে। সকালে ঘুম থেকে উঠে সকলের সাথে কথা বলে নাস্তা খেয়ে সে দরজা বন্ধ করে দেয়।

এরেই এক পর্যায়ে সকলের অগোচড়ে সে তার নিজ শয়ন কক্ষে ঘড়ে আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।তার গোঙ্গানীর শব্দে তার বাবা ও মা ঘড়ের বেড়া কেটে তাকে নিচে নামালেও এর আগেই তার মৃত্যু ঘটে।

ডোমার থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. মোকছেদ আলী মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য