ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ তীব্রশীতে স্থবীর হয়ে পড়েছে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার চনসাধারনের জিবন যাত্রঅ। গত দুই দিন থেকে সূর্য্যর মুখ দেখা যায়নি এই অঞ্চলে, বিশেষ কাজ ছাড়া ঘরের বাহীর হতে দেখা যায়নি সাধারন মানুষদের। স্কুল কলেজে যাতায়াত কমে গেছে শিক্ষার্থীদের। ঘন কুয়াশাও হিমেল হাওয়ায় শীতের তীব্রতা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে।

পৌর শহর ঘুরে দেখা গেছে শহরের অধিকাংশ দোকানপাঠ দিনের বেশি ভাগ সময় বন্ধ থাকে । ব্যবসায়ীরা বলছেন শীতের কারনে বেচাকেনা এক বারে কমে গেছে, কেবল ভিড় দেখা গেছে শীতে পোষাকের দোকানে। শীতের পুরাতুন কাপড়ের দোকান গুলোতে দেখা গেছে উপচে পড়া ভিড়।

শীতের কারনে ঘরের বাহীরে মানুষ বের না হওয়ায়, বিপাকে পড়েছে দিন মজুর, রিক্সা শ্রমিক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা, রিক্সা চালকেরা বলছেন শীত উপক্ষো করে তারা বেরিয়ে আসলেও যাত্রী পাচ্ছেননা। এছাড়া বেচাকেনা কমে যাওয়ায় সংসার অচল হয়ে পড়েছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের।

এদিকে শীতের কারনে ধ্বংশের দ্বার প্রান্তে বোরো বীতলাা। কৃষকেরা বলছেন, আর কয়েকদিন এই অবস্থা চলতে থাকলে, বোরো বীজতলা একেবারে ধ্বংশ হয়ে যাবে ।এই বীজতলা ধ্বংশ হয়ে গেলে সময়মত বোরো রোপন করতে পারবেনা তারা। তবে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এটিএম হামিম আশরাফ বলছেন বীজচারা অনেক বড় হয়ে গেছে, এখন শীতে বীজচারার তেমন কোন ক্ষতি হবে না।

অপরদিকে শীতের কারনে শীতজনীত রোগের প্রকোপ বাড়ছে, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল ইসলাম বলছেন, গত দুই দিনে শতাধিক শীতজনিত রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে এসেছে, এদের মধ্যে শিশু ও বয়স্কর সংখ্যা বেশি। তিনি বলেন এই অবস্থা চলতে থাকলে, এই শীত জনিক রোগীর সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য