জম্মু-কাশ্মিরে নিরাপত্তা বাহিনী ও প্রতিবাদী জনতার মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। আজ (শুক্রবার) দক্ষিণ কাশ্মিরের পুলওয়ামা জেলায় কারীমাবাদে গেরিলাদের সন্ধানে তল্লাশি অভিযান চালানোর সময় স্থানীয় প্রতিবাদী জনতা তাতে বাধা সৃষ্টি করলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

গোপনসূত্রে সংশ্লিষ্ট এলাকায় গেরিলাদের উপস্থিতির খবর জানতে পেরে আজ নিরাপত্তা বাহিনী ওই এলাকায় বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালাতে যায়। এসময় স্থানীয় জনতা সড়কে নেমে নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে তাদের বাধা দেয়। উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে নিরাপত্তা বাহিনী এ সময় কাঁদানে গ্যাসের সেল নিক্ষেপ করে।

আজ দক্ষিণ কাশ্মিরে বিজবেহারাতেও নিরাপত্তা বাহিনী গেরিলাদের সন্ধানে বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালায়। জাবিলপোরা এলাকাতে সেনাবাহিনীর রাষ্ট্রীয় রাইফেলস, আধাসামরিকবাহিনী সিআরপিএফ ও পুলিশের স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ যৌথভাবে ওই তল্লাশি অভিযান চালায়।

এদিকে, কর্তৃপক্ষ আজ (শুক্রবার) হুররিয়াত কনফারেন্সের একাংশের প্রধান মীরওয়াইজ ওমর ফারুককে ঐতিহাসিক জামিয়া মসজিদে জুমা নামাজ আদায় করতে অনুমতি দেয়নি। মীরওয়াইজ ওমর ফারুক ওই ঘটনাকে ধর্মীয় মৌলিক অধিকারে হস্তক্ষেপ ও লজ্জা বলে অভিহিত করেছেন।

অন্যদিকে, দুখতারান ই মিল্লাত প্রধান সাইয়্যেদ আসিয়া আন্দ্রাবিকে গতকাল (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় পুলিশ গৃহবন্দি করেছে। কোনো কারণ ছাড়াই তাকে গৃহবন্দি করা হেয়ছে বলে সংগঠনটির মুখপাত্র সোফি ফাহমিদা অভিযোগ করেছেন।

এদিকে, আজ জুম্মু-কাশ্মিরে পুঞ্চের শাহপুর সেক্টরে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর ভারত ও পাকিস্তানি সেনাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি গোলাগুলি বিনিময় হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য