সংবাদ সম্মেলনঃ ঠাকুরগাঁও হরিপুর উপজেলায় গৃহবধু মৌসুমী আক্তারের (২০) মৃত্যুর ঘটনায় মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে গৃহবধুর মা দুখি বেওয়া।

শনিবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও প্রেসক্লাব আনিসুল হক মিলনায়তনে গৃহবধুর মা দুখি বেওয়া লিখিত বক্তব্যে পাঠ করে সাংবাদিকদের শোনান।

তিনি বলেন, আমার জামাতা জাহাঙ্গীরের অনুপস্থিতিতে আমার মেয়ে মৌসুমী আক্তার নিজ দেবর হাসিবুলের সঙ্গে দৈহিক সম্পর্কে জড়িয়ে পরে। গত ১৪ ডিসেম্বর বাড়িতে ফিরে তাদেরকে হাতেনাতে ধরে ফেলে জামাতা জাহাঙ্গীর। ওই দিন রাতেই ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আমিনুল ইসলাম ওরফে ফকিরকে সাথে নিয়ে হরিপুরে জামাতার বাড়ি যাই। আমার মেয়েকে ঘটনার কথা বললে সে সত্যতা স্বীকার করে। অবশেষে আমার মেয়ে মৌসুমী জামাতা জাহাঙ্গীরের হাত ধরে ক্ষমা চায়।

এরপর জাহাঙ্গীর আমার মেয়ে সহ আমার বাড়িতে বেড়াতে আসে ৩ দিন অবস্থানের পর হরিপুরে তাদের বাড়িতে যায়। গত ২১ ডিসেম্বর বিকেলে আমার মেয়ে জামাইয়ের শয়ন ঘরে বাঁশের সরের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। আমি সেখানে গেলে এলাকাবাসী ও পাড়া প্রতিবেশিদের সাথে কথা বলে সে আত্মহত্যা করেছে বলে নিশ্চিত হই। থানায় একটি ইউডি মামলা হয়।

কিন্তু পরবির্ততে আমার সতিনের কন্যা ফিরোজা বেগম আমার জামাতা জাহাঙ্গীর আলম, তার পরিবারের লোকজন ও স্থানীয় কাজী আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে হরিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করে। পরে গত ২৮ ডিসেম্বর মেয়ের চাচা আব্দুল হাই বাদী হয়ে একই উদ্দেশ্যে আরেকটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করে।

গৃহবধুর মা সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়ে অপমৃত্যুর বিষয়ে উল্লেখিত ২ জনের অভিযোগ উদ্দেশ্য প্রনোদিত। আমি এ বিষয়ে প্রকাশিত বিভিন্ন সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য