চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ৬ দিনের ব্যবধানে ১১টি গরু চুরি হওয়ায় চোর আতঙ্কে বিনিন্দ্র রাত্রী যাপন করছেন এলাকাবাসী।

জানা গেছে, গত ২৭ ডিসেম্বর বুধবার গভীর রাতে চোরেরা অমরপুর ইউনিয়নের বাসুদেবপুর পানুয়া পাড়া গ্রামের মৃত. তৈলক্ষ চন্দ্র দাসের পুত্র বিমল চন্দ্র দাসের বাড়ীর প্রাচীর টপকিয়ে ৩ লক্ষ টাকা মূল্যের দু’টি ষাঁড় চারটি গাভী চুরি করে নিয়ে যায়।

অপর দিকে একই রাতে সাতনালা ইউনিয়নের তারকশাহার হাটতাল তলা গ্রামের বাছের মন্ডল পাড়ার মৃত আব্দুল লতিফের স্ত্রী তহমিনা খাতুনের বাড়ীর সদও দরজার তালা ভেঙ্গে দেড় লক্ষ্য টাকা মূল্যের দু’টি ষাঁড় ও একটি গাভী চুরি করে নিয়ে যায়।

এর আগে গত ২২ ডিসেম্বর রাতে চোরেরা উপজেলার অমরপুর ইউনিয়নের মথুরাপুর গ্রামের কারেঙ্গা তলী বাজার সংলগ্ন মৃত আব্দুল মজিদের পুত্র জাহিনুর আলমের বাড়ীর প্রাচীর টপকিয়ে ২ লক্ষ টাকা মূল্যের বিদেশী গাভীসহ দু’টি গরু চুরি হয়। চুরি যাওয়া গরুর মালিক জাহিনুর জানান, আইন শৃংখলা অবনতির কারনেই এলাকায় চোরের রামরাজত্ব কায়েম হয়েছে।

এ ভাবে চলতে থাকলে একসময় চোরের উপদ্রপে বাড়ীর আরো অনেক মুল্যবান সম্পদও হারাতে হবে।

এব্যাপারে চিরিরবন্দর থানার অফিসারইনচার্জ হারেসুল ইসলাম জানান, সাধারণত ডিসেম্বর মাসে মাঠ ঘাট ফাঁকা হওয়ার কারনে চোরের উপদ্রপ একটু বৃদ্ধি পেয়ে থাকে।

তবে পুলিশের টহল প্রতিরাতে অব্যাহত রয়েছে। গত ২৭ ডিসেম্বর থানার কিছু সংখ্যক পুলিশ বিরল উপজেলার পৌর নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করতে গেলে টহল পুলিশের সংখ্যা কম থাকায় চোরেরা এ সুযোগ নিতে পারে বলেও তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য