আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট থেকে: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় বুড়িমারী সীমান্তে গরু পারাপারের সময় আব্দুল লতিফ(২৫) নামে এক বাংলাদেশী রাখালকে আটক করেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। এ সময় বিএসএফ’র হাতে নির্যাতনের স্বীকার আজম আলী(২২) নামে অপর এক বাংলাদেশী পালিয়ে এসেছে।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতে উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের মাষ্টারবাড়ী সীমান্তের ৮৪৩ নং মেইন পিলারের ৩ নং সাবপিলারের নিকট এ ঘটনাটি ঘটে। আটকৃকত আব্দুল লতিফ নওগাঁ জেলার আত্রাই উপজেলার আত্রাই এলাকার রফিকুলের পুত্র এবং বর্তমানে সে ভারতীয় কোচবিহার-৬১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চ্যাংরাবান্ধা ক্যাম্পে আটক রয়েছেন বলে জানা গেছে। এদিকে আহত আজম আলী উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের উফারমারা এলাকার নজরুল ইসলামের পুত্র।

রংপুর বিজিবি-৬১ ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মেজর মুনীরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার ভোর রাতে আব্দুল লতিফ ও আজম আলীসহ কয়েকজন বাংলাদেশী গরু পারাপারকারী রাখাল উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের মাষ্টারবাড়ী সীমান্তের ৮৪৩ নম্বর মেইন পিলারের ৩ নং সাবপিলারে নিকট ভারতীয় গরু নিয়ে ফিরছিলো।

এ সময় ভারতীয় কোচবিহার-৬১ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চ্যাংরাবান্ধা ক্যাম্পের টহল দল তাদের আটক করে মারধর শুরু করেন। এক পর্যায়ে সেখান থেকে আজম আলী পালিয়ে আসে এবং আব্দুল লতিফকে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায় বিএসএফ। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় বিজিবির পক্ষ থেকে কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে বিএসএফ’র কোম্পানী কমান্ডার লেভেলে পতাকা বৈঠকের জন্য চিঠি পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, আহত আজম আলী এখানে এসে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বিজিবি ও পুলিশের হাতে আটকের ভয়ে পালিয়ে যান। এছাড়া তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য