চিরিরবন্দরে মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির দরজায় পুলিশের লাথির অভিযোগে মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৬ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দিবাগত রাত আড়াইটায়।

মুক্তিযোদ্ধা তোরাব আলীর ছেলে আবদুল কাইয়ুমসহ পরিবারের সদস্যদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা গেছে, চিরিরবন্দর থানার এস আই আতোয়ার রহমানের নেতৃত্বে পুলিশ কোন কারণ ছাড়াই উপজেলার ফতেজংপুর ইউনিয়নের বড় হাশিমপুর গ্রামের পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা মোঃ তোরাব আলীর (তাদের) বাড়ির দরজায় লাথি মারে এবং দরজা খুলতে বলে।

দরজা খুলে না দেয়ায় পুলিশ জানালা ভেঙ্গে ফেলে ও বাড়ির ছাদে উঠে এবং গালাগাল শুরু করে। পুলিশ আসার কারণ জানতে চাইলে কোন জবাব না দিয়ে চলে যায়।

বুধবার এ ঘটনায় থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ হারেসুল ইসলামের জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, রাতের টহল পাটি তাকে না জানিয়ে ওই মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে তাস খেলার অভিযোগে প্রবেশের চেষ্টা করেছে।

টহল দলের ইনচার্জ এস আই আতোয়ার দরজায় লাথি মারার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, গভীররাতে তাস খেলার সংবাদ পেয়ে ওই বাড়িতে যাই এবং দরজা খুলতে অনুরোধ করি।

দরজার কড়া বারবার নড়াচড়া করলেও দরজা না খোলায় সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মমিনুল ইসলামকে মোবাইল ফোনে ঘটনাটি জানাই। এরপর চলে আসি।

পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা তোরাব আলী জানান, পুলিশ তার বাড়িতে জানালা ভেঙ্গে প্রবেশ করেছিল। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য