আল্পস পর্বতের সুইজারল্যান্ড অংশে পৃথক তিনটি তুষারধসের ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন।

শনি, রবি ও সোমবার পরপর তিনদিনে এসব ঘটনা ঘটেছে বলে সোমবার সুইস পুলিশ জানিয়েছে, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

সোমবার সকালে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ ভ্যালিসের ২,৮৪৪ মিটার উঁচু পর্বত হোফাথর্নের শিখরের কাছে স্কি করার সময় তুষারধসে একজন মারা যান।

তুষারধসের পরপরই ভ্যালিস অঞ্চলের ৩৯ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে তার বন্ধুরা খুঁজে পেয়েছিলেন, কিন্তু ঘটনাস্থলেই জরুরি বিভাগের কর্মীরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পূর্ব সুইজারল্যান্ডের গাবানডেনের পুলিশ জানিয়েছে, শনিবার নিখোঁজ হওয়া এক পর্যটককে মৃত পাওয়া গেছে।

৩১ বছর বয়সী ফ্রান্সের ওই নাগরিক শনিবার বিকেলে তার বান্ধবীর সঙ্গে স্কি করার পর গ্লাতাবাং পর্বতে আরোহণের চেষ্টা করেছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। পরে ফিরে না আসায় তাকে খুঁজতে একটি উদ্ধারকারী দল পাঠানো হয়। রোববার সকালে একটি গিরিখাতে তার লাশ পাওয়া যায়।

পুলিশ জানিয়েছে, তুষারধসের ধাক্কায় পর্বতের পাথুরে গা বেঁয়ে এক কিলোমিটারের বেশি দূরে চলে গিয়েছিলেন তিনি।

পাশাপাশি শনিবার হাঁটতে গিয়ে তুষারধসের নিচে চাপা পড়া তিন ব্যক্তির মধ্যে একজন মারা গেছেন বলে পুলিশের বরাতে জানিয়েছে সুইস ব্রডকাস্টার এসআরএফ।

দলটি সেইন লুক অঞ্চলের ২,৭০০ মিটার উঁচু দিয়ে হাইকিং করার সময় তুষারধসের ঘটনাটি ঘটে। তাদের মধ্যে একজন তুষার নিচ থেকে নিজেকে মুক্ত করে জরুরি বিভাগে ফোন দেন। জরুরি বিভাগের কর্মীরা এসে অন্যান্যদের উদ্ধার করে।

তাদের সবাইকে হেলিকপ্টার যোগে হাসপাতালে নেওয়ার পর রোববার সন্ধ্যায় ২৯ বছর বয়সী আহত এক নারী মারা যান। তিনি সুইজার‌ল্যান্ডের ভোঁ প্রদেশের বাসিন্দা ছিলেন বলে জানিয়েছে এসআরএফ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য