আমেরিকা ও থাইল্যান্ডের সেনাদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠেয় সামরিক মহড়ায় যোগ দেবে মিয়ানমার। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে ‘কোবরা গোল্ড’ নামের এ মহড়া অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে মার্কিন সেনা সদরদপ্তর পেন্টাগন।

রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর হত্যা ও জাতিগত নিধনযজ্ঞের জন্য যখন সারা বিশ্বে মিয়ানমারের সামিরক বাহিনীর বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা চলছে তখন আমেরিকার সঙ্গে দেশটি মহড়া চালাতে যাচ্ছে। এ মহড়ায় আমেরিকা ও থাইল্যান্ডের কয়েক হাজার সেনার পাশাপাশি এশিয়ার আরো কয়েকটি দেশের সামরিক বাহিনী অংশ নেবে।

পেন্টাগনের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল ক্রিস্টোফার লোগান বার্তা সংস্থা রয়াটার্সকে আজ (রোববার) জানিয়েছেন, বার্ষিক এ মহড়ায় যোগ দেয়ার জন্য মিয়ানমরাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে থাইল্যান্ড। তিনি দাবি করেছেন, মিয়ানমারের সেনারা মহড়ার শুধু মানবিক সহায়তা ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অংশে পর্যবেক্ষক হিসেবে থাকবে।

থাইল্যান্ড কেন মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে মহড়ায় অংশ নেয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানালো- এমন এক প্রশ্নের জবাবে থাই রাজকীয় সামরিক বাহিনীর একজন শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা রয়টার্সের সাংবদিককে বলেছেন, “কখনো এ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন না।

ওই ইস্যু থেকে আমরা আলাদা। আমরা প্রশিক্ষণ, শিক্ষা এবং সামরিক সহযোগিতার ওপর জোর দিচ্ছি। আমাদের ইচ্ছা যে, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী এ মহড়ায় যোগ দিক।” থাই সামরিক কর্মকর্তা আরো বলেন, “ওটা হচ্ছে রাজনীতি। আমরা সেনা এবং এটা একটা সামরিক মহড়া।”

মিয়ানমারকে আমন্ত্রণ না জানানোর বিষয়ে থাই সামরিক বাহিনীর ওপর আমেরিকা কখনো চাপ সৃষ্টি করেছে কিনা -এমন এক প্রশ্নের জবাবে কোনো মন্তব্য করে নি পেন্টাগন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য