সরকারি অনুদানে নির্মিত মোরশেদুল ইসলামের শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’ ২২ ডিসেম্বর মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এদিকে গত ১৮ ডিসেম্বর রাজধানীর বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সে ছবিটির প্রিমিয়ার হয়েছে।

প্রিয়মিয়ার শেষে ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন জনপ্রিয় নির্মাতা তৌকির আহমেদ-‘প্রিমিয়ারে দেখা হয়ে গেল ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’।

মোরশেদুল ইসলামের পরিচালনায় জাফর ইকবালের উপন্যাস অবলম্বনে, বাচ্চাদের নিয়ে সুনির্মিত এই ছবিটি দেখতে বাচ্চারা আগ্রহী হবেন স্বাভাবিকভাবেই, সঙ্গে বাবা-মাও উপভোগ করতে পারবেন পুরোটাই।

অত্যন্ত সংবেদনশীল একটি গল্পকে মোরশেদুল ইসলাম পর্দায় এনেছেন সুন্দর ভাবে। মোরশেদুল ভাইয়ের সব কাজেই দায়বদ্ধতার জায়গাটি পরিস্কার, নিরলসভাবে তিনি কাজ করে চলেছেন। মুক্তিযুদ্ধ এবং শিশুদের বিষয় তার চলচ্চিত্রে বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে বেশীর ভাগ সময়ে।

শিশুদের নিয়ে আমাদের দেশে খুব কম কাজ হয়। সেক্ষেত্রে মোরশেদ ভাই এর চেষ্টা প্রসংশনীয়। এই ধরনের চলচ্চিত্রকে কিভাবে সবর্স্তরের শিশুদের কাছে নিয়ে যাওয়া যায় সেটা ভাবা উচিত। সরকারের সহযোগিতা থাকা উচিত কর মওকুফ বা প্রতিটি প্রেক্ষাগৃহে শিশুদের জন্য কিছু সংরক্ষিত প্রদর্শনীর আয়োজন তো হতেই পারে।

নির্মাতা তার দায়বদ্ধতা থেকে বানিয়েছেন এবার দর্শকরা একটু দায়বদ্ধ হয়ে যদি আপনাদের সন্তানদের নিয়ে ছবিটা দেখেন তা হলেই নির্মাতার পরিশ্রমটা সার্থক হবে। মোরশেদুল ইসলাম, তানভীর মোকাম্মেল, তারেক মাসুদ এর ছবি দেখেই আমরা তারুন্যে অনুপ্রাণীত হয়েছিলাম, স্বপ্ন দেখেছিলাম চলচ্চিত্র নির্মানের। কৃতজ্ঞতা- অগ্রজ মোরশেদুল ইসলাম।’

ইমপ্রেস টেলিফিল্ম ও মনন চলচ্চিত্র প্রযোজিত চলচ্চিত্রটির ‘আঁখি’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন জাহিন নাওয়ার হক ইশা। প্রিমিয়ার শো দেখতে হাজির হয়েছিলেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল, নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম, সুবর্ণা মুস্তাফাসহ আরও অনেকেই। মোরশেদুল ইসলাম পরিচালিত ‘দীপু নাম্বার টু’ ও ‘আমার বন্ধু রাশেদ’-এর সাফল্যের পর এবার আসছে এ ছবিটি।

‘আঁখি’ নামে অদম্য এক ছোট মেয়েকে ঘিরে এই চলচ্চিত্রের কাহিনী। মেয়েটি অন্ধ। প্রতিবন্ধী স্কুলে না পড়ে সাধারণ স্কুলে পড়তে আসে সে। কিন্তু শিক্ষকদের দুর্ব্যবহারে আঁখি যখন চলে যেতে চায়, তিতু আর তার বন্ধুরা এগিয়ে আসে তখন।

আঁখি জানায়, সে অন্ধ হিসেবে বিবেচিত হতে চায় না। সে আর ১০ জনের মতো হতে চায়। আঁখির এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে বন্ধুরা। আঁখিকে অন্ধ হিসেবে কোনো করুণা করে না তারা। ¯্রফে বন্ধু মনে করে। এরপর নানা ঘটনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যায় কাহিনী।

ছবিটিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছে জাহিন নাওয়ার হক। আরও আছে অনন্য সামায়েল, জুয়াররিয়া আহমেদ, অরিয়ানা কবির, শাকিল আহমেদ, আইমান মাহমুদ, আবদুস শিহাব, সৈয়দ আশিকুজ্জামান, ধ্রুবন্তী ও নাভিদ হাসান। এ ছাড়া অভিনয় করেছেন সুবর্ণা মুস্তাফা, তারিক আনাম খান, আল মনসুর, এস এম মহসিন, মান্নান হীরা, মুনিরা ইউসুফ মেমি, সুস্মিতা সিনহাসহ আরও অনেকেই।

ছবিটির চিত্রগ্রহণে রয়েছেন মাহফুজুর রহমান খান; সম্পাদনা, শব্দ ও রঙ বিন্যাসে সুজন মাহমুদ; আবহ সংগীতে সানী জুবায়ের; শিল্প নির্দেশনায় অশোক ঘোষ এবং পোশাক পরিকল্পনায় প্রীতি রোজারিও।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য