কুড়িগ্রামের চিলমারীতে সার্ভেয়ার আদালতে ভুয়া তথ্য দিয়ে প্রতিবেদন দাখিল করায় চাষীর ধান কাটতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হওয়ায় কয়েক বিঘা জমির পাকা ধান মাটির সঙ্গে মিশে যেতে বসেছে। জমির বর্গাদার ঐ জমির পাকা ধান কেটে ঘরে তুলতে না পারায় দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার থানাহাট ইউনিয়নের কিশমতবানু মৌজার গাবেরতল সোনারীপাড়া এলাকার ১.০৫ শতাংশ জমি নিয়ে ঐ এলাকার ফুল মিয়ার সঙ্গে উলিপুর উপজেলা বামনাছড়া এলাকার মরহুম নুরল ইসলাম মাস্টারের সঙ্গে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। শেষ পর্যন্ত মামলা মহামান্য সুপ্রীম কোর্ট পর্যন্ত গড়ায়।

তৎকালীন উপজেলা আদালত থেকে হাইকোট পর্যন্ত কয়েকদফা রায় হওয়ার পর সুপ্রীম কোর্টে চুড়ান্ত রায়ের মধ্য দিয়ে মামলাটি নিষ্পত্তি হয়। সুপ্রীম কোর্টের রায় মোতাবেক বিজ্ঞ আদালত ২০০৮ সালে প্রকৃত জমির মালিককে জমির দখল প্রদান করে। তখন থেকে জমির প্রকৃত মালিক মরহুম নুরল হক মাস্টার গং মোঃ আকরামুল হককে জমির বর্গাদার নিয়োগ করে জমি ভোগ দখল করে আসছে।

জমি থেকে উচ্ছেদকৃত অবৈধ দখলদার ফুল মিয়া সম্প্রতি নালিশি জমি আবারো অবৈধ দখলে নেওয়ার জন্য জমির বর্গাদার আকরামুল হক গং কে জমির অবৈধ মালিকানা দাবীদার দেখিয়ে বিজ্ঞ আদালতে ১৪৪ধারা জারির একটি পিটিশন মামলা দায়ের করে। বিজ্ঞ আদালত জমির প্রকৃত মালিক সনাক্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে নির্দেশ প্রদান করে।

সহকারী ভূমি কমিশনার নালিশি জমির প্রকৃত মালিক সনাক্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আব্দুল্যাহ আল মামুন, সার্ভেয়ার, উপজেলা ভূমি অফিস, চিলমারীকে নির্দেশ প্রদান করেন। আব্দুল্যাহ আল মামুন অবৈধভাবে জমির মালিকানা দাবীদার ফুল মিয়া গংকে জমির প্রকৃত মালিকানা ও চাষাবাদ করছে মর্মে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন।

ফলে জটিলতার সৃষ্টি হওয়ায় জমির প্রকৃত মালিকের বর্গাদার জমির পাকা ধান সময়মত কাটতে না পারায় তা মাটিতে ঝড়ে পড়ছে। জমি চাষাবাদকারী বর্গাদার আকরামুল হক জানান, বর্ষা মৌসুমে পর পর দু-দফা জমির ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ার পর অতিকষ্টে তৃতীয় দফা জমিতে আমনের চাষ করা হয়েছে। পাকা ধান কাটতে না পারায় সেগুলো জমিতেই ঝড়ে পড়ছে।

ধান কাটতে না পারায় তিনি পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মির্জা মুরাদ হাসান বেগ এর সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য