ত্রুটিপূর্ণ জোড়ার কারণে যুক্তরাজ্যের নতুন বিমানবাহী রণতরী এইচএমএস কুইন এলিজাবেথে পানি ঢুকছে।

চলতি মাসের শুরুর দিকে ব্রিটিশ রানি এলিজাবেথ দেশটির রাজকীয় নৌবাহিনীর ভবিষ্যত ফ্ল্যাগশিপ রণতরীটির কমিশনিং করেছিলেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

সমুদ্রে পরীক্ষামূলকভাবে চালানোর সময় ৩০১ কোটি পাউন্ড মূল্যের রণতরীটির একটি প্রপেলার শ্যাফটে ফুটোর অস্তিত্ব পাওয়া গেছে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রাজকীয় নৌবাহিনীর এক মুখপাত্র জানান, এইচএমএস কুইন এলিজাবেথের ত্রুটি সারানোর সময় নির্ধারিত হয়েছে। আগামী বছরের শুরু থেকে রণতরীটির আনুষ্ঠানিক যাত্রায় এটি বাধা হয়ে দাঁড়াবে না বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

“সমুদ্রে পরীক্ষা করার সময় এইচএমএস কুইন এলিজাবেথের শ্যাফটের জোড়ায় একটি ত্রুটি চিহ্নিত করা হয়েছে, পোর্টসমাউথের কাছে থাকার সময়ই ত্রুটিটি সারানোর সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। এটা তার পরবর্তী যাত্রায় বাধা হয়ে দাঁড়াবে না, সমুদ্রে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজও বিঘ্নিত হবে না,” বলেন তিনি।

ফুটোর কারণে এইচএমএস কুইন এলিজাবেথকে প্রতি ঘণ্টায় দুইশ লিটার সামুদ্রিক পানির প্রবেশ করছে বলে যুক্তরাজ্যের দৈনিক সান জানিয়েছে।

বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজের এই ত্রুটিকে যুক্তরাজ্যের রাজকীয় নৌবাহিনীর জন্য ‘অত্যন্ত বিব্রতকর’ ঘটনা হিসেবে দেখছেন বিবিসির প্রতিরক্ষা বিষয়ক প্রতিনিধি জনাথন বিয়েল।

রণতরীটির জন্য কিনতে চাওয়া এফ থার্টি ফাইভ জঙ্গিবিমানের দাম নিয়ে পার্লামেন্ট সদস্যদের উদ্বেগের মধ্যেই এই ত্রুটির খবর জানা গেল।

দুইশ ৮০ মিটার দীর্ঘ এইচএমএস কুইন এলিজাবেথকে দ্রুতই কোথাও মোতায়েন করার পরিকল্পনা না থাকলেও আগামী বছরের শুরু থেকে রণতরীটির ডেক থেকে হালকা জঙ্গিবিমানের পরীক্ষামূলক উড্ডয়ন শুরু হতে পারে। এজন্য বিমানের ১২০ জন ক্রু যুক্তরাষ্ট্রে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে বলেও বিবিসি জানিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য