কুড়িগ্রামের উলিপুরে জন্ম তারিখ পরিবর্তন ও জাল সনদের মাধ্যমে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগের পায়তারার অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, উপজেলার ধরণীবাড়ী ইউনিয়নের মাদারটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী পদে নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এই সুযোগে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগ নেয়ার জন্য মাদারটারী গ্রামের বারব উদ্দিনের পূত্র হারুন-অর-রশিদ এসএসসি পরীক্ষা পাশের সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র, জন্ম নিবন্ধন গোপন করে জাল সনদ সৃষ্টির মাধ্যমে জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্ম তারিখ সংশোধন করে নিয়ে আসে।

হারুন অর রশিদ ২০০৩ সালে উপজেলার ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের বামনের হাট উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে। ওই সনদে জন্ম তারিখ ২০/৫/৮৫ ইং। সে মোতাবেক তার বর্তমান বয়স ৩২ বছর ৭ মাস।

সে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের অধীনে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে ছিলেন। সরকারী চাকুরির বয়স সীমা অতিক্রম করায়, কৌশলে সব সনদ গোপন করে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনকে ভূয়া তথ্য দিয়ে বয়স কমিয়ে এনে ওই বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী পদে চাকুরী নেয়ার পায়তারা করছেন। তার জালিয়াতির বিষয়টি ফাঁস হলে এ নিয়ে এলাকার চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে হারুন-অর-রশিদ এর সাথে কথা হলে তিনি বয়স কমিয়ে আনার বিষয়টি স্বীকার করেন।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। নিয়োগের সময় কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানিত হলে আবেদন বাতিল করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য