আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট থেকেঃ লালমনিরহাটে লাখো মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হলেন সাবেক এমপি ও বর্ষীয়ান রাজনৈতিবিদ জয়নুল আবেদীন সরকার। বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) দুপুরে হাতীবান্ধা এসএস হাই স্কুল এন্ড কলেজে তার নামাজে জানাজায় লাখো মানুষ অংশগ্রহণ করে তাকে শেষ বিদায় জানান।

এর আগে গতকাল বুধবার দুপরে জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল বুধবার ভোরে তিনি ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৬৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

নামাজে জানাজা শেষে তাকে পরিবারিক কবর স্থানে দাফন করা হয়েছে। নামাজে জানাজায় সাবেক মন্ত্রী মোতাহার হোসেন এমপি ও সাবেক মন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাব্বি দুলুসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের হাজার হাজার নেতা-কর্মীসহ লাখো মানুষ উপস্থিত ছিলেন। সাবেক এমপি জয়নুল আবেদীন সরকারের পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, তার মৃত্যুতে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসইেন মুহাম্মদ এরশাদ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

হাতীবান্ধা উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক মোশারফ হোসেন জানান, ১৯৮৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করলে তিনি হাতীবান্ধা বিএনপি’র সম্পাদক থাকা অবস্থায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। ওই নির্বাচনে তিনি প্রথম সংসদ সদস্য হিসাবে নির্বাচন হন। পরে প্রথমত বিএনপি ছেড়ে বিএনপি’র (হুদা-মতিন) গ্রুপে পরে এরশাদের জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন। তিনি পরপর ৪ বার সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচন হয়েছেন। তিনি বিভিন্ন সময় জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সংগঠনিক সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি ২০০৯ সালে আবারো বিএনপি’তে ফিরে আসেন। তখন থেকে লালমনিরহাট জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে আছেন। জয়নুল আবেদীন সরকার হাতীবান্ধ-পাটগ্রাম এলাকার অর্ধ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৈরীকে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য