১৪ ডিসেম্বর হানাদার বাহিনীর হাত থেকে মুক্ত হয় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা। মুক্তি বাহিনীসহ যৌথবাহিনীর অব্যাহত গেরিলা হামলার মুখে ১৩ ডিসেম্বর গভীর রাতে ঘোড়াঘাট সিমান্তবর্তী গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের ভিতর দিয়ে হানাদার বাহিনী পালিয়ে যায়।

১৪ই ডিসেম্বর প্রতুষ্যে উপজেলার আপামর জনতা বিজয় আনন্দে মেতে উঠে। ঘোড়াঘাট উপজেলা থেকে প্রায় ৪১জন যোয়ান মুক্তি যুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছিল বলে একটি তথ্যে জানা যায়।মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ১৩জন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ হন।

তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য শহীদ মেজর বদর উদ্দিন আহমেদ। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন হানাদার বাহিনীরা বিভিন্নস্থান থেকে নিরীহ লোকজনকে ধরে এনে স্থানীয় ডাকবাংলা,পাশ্ববর্তি পানি উন্নয়ন বোর্ড ও লালদহ বিল সংলগ্ন স্থানে নির্মমভাবে হত্যা করে মাটি চাপা দিয়ে রাখে।

তাদের স্মৃতিরক্ষার জন্য স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরেও আজও দর্শনীয় কোন স্মৃতি সৌধ নির্মান করা হয়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য