যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যৌন অসদাচরণের অভিযোগ করা তিন নারী অভিযোগের বিষয়ে মার্কিন কংগ্রেসের তদন্ত দাবি করেছেন।

সোমবার নিউ ইয়র্কে এক সংবাদ সম্মেলনে তারা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে স্পর্শ করা, জড়িয়ে ধরা, জোর করে চুমু খাওয়া, অপমান ও হয়রানি করার অভিযোগ পুনর্ব্যক্ত করেছেন বলে খবর বিবিসির।

সংবাদ সম্মেলনের অল্প কিছুক্ষণ আগে জেসিকা লিডস, সামান্থা হলভি ও র‌্যাচেল ক্রুকস নামের ওই তিন নারী টেলিভিশনের সরাসরি সম্প্রচারে অভিযোগগুলোর বিস্তারিত বর্ণনাও দিয়েছেন।

ওই নারীরা ‘মিথ্যা অভিযোগ’ করছে বলে দাবি হোয়াইট হাউসের।

গত বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময়ও ট্রাম্প এই তিন নারীর অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন, এবং অভিযোগকারীদের আইনের আওতায় আনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন; তবে বছর পেরুলেও সে পথে হাঁটতে দেখা যায়নি তাকে।

জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি গত সপ্তাহে এ বিষয়ে বলেছিলেন, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলেও ওই নারীদের কথা শোনা উচিত।

“আমি সেসব নারীকে নিয়ে গর্বিত, যারা (অভিযোগ নিয়ে) এগিয়ে এসেছেন,” সিবিএস নিউজকে বলেন হ্যালি।

পাশাপাশি ডেমোক্রেট দলের তিন সিনেটর কোরি বুকার, জেফ মার্কলি ও কার্সটেন গিলিব্র্যান্ড যৌন অসদাচরণের অভিযোগে ট্রাম্পকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কয়েক নারীর করা যৌন হয়রানির অভিযোগ নিয়ে গত মাসে ‘সিক্সটিন উইমেন অ্যান্ড ডোনাল্ড ট্রাম্প’ নামের একটি প্রামাণ্যচিত্র মুক্তি পেয়েছে। ওই প্রামাণ্যচিত্রের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ব্রেভ নিউ ফিল্মসই সোমবারের এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাসখানেক আগে লিডস, হোভে ও ক্রুকসের অভিযোগগুলো জনসমক্ষে এসেছিল।

অক্টোবরে চলচ্চিত্র প্রযোজক হার্ভে উইনস্টনের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠার পর থেকে হলিউড ও যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে আছড়ে পড়া একের পর এক যৌন হয়রানির অভিযোগের মধ্যে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলো নতুন মাত্রা পায়।

সোমবার এনবিসি নিউজকে হলভি বলেন, ২০০৬ সালে মিস ইউএসএ সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সময় ট্রাম্প অন্যান্য প্রতিযোগীর মতো তার দিকেও লম্পটের মতো তাকিয়েছিলেন। মিস নর্থ ক্যারোলাইনা হলভির বয়স তখন ২০ বছর, ব্যবসায়ী ট্রাম্প ছিলেন সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজক প্রতিষ্ঠানের মালিক।

“তিনি আমাদের সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করান এবং আমার দিকে এমনভাবে তাকাচ্ছিলেন যেন আমি মাংসের টুকরা; অরুচিকর মনে হচ্ছিল আমার,” এনবিসি নিউজের উপস্থাপক মেগান কেলিকে বলেন হলভি।

পরে সংবাদ সম্মেলনে দেওয়া বক্তৃতায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কংগ্রেসের তদন্ত দাবি করেন তিনি।

“তারা অন্যান্য কংগ্রেস সদস্যদের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে। আমার মনে হয় পুরো ব্যাপারটি তখনি ন্যায্যতা পাবে যখন তাকে (ট্রাম্প) নিয়েও তদন্ত হবে। এটা কোনো দলের বিষয় নয়, নারীরা প্রতিদিন কী ধরণের আচরণের শিকার হচ্ছে, এটা সেই ধরণের বিষয়,” বলেন তিনি।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করা ৭০ বছর বয়সী নারী লিডস বলেন, ৩২ বছর আগে নিউ ইয়র্কগামী এক ফ্লাইটের প্রথম শ্রেণির কামরায় ট্রাম্প তার ওপর ‘ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন’।

“আমি চাই সবাই জানুক বাস্তবে ট্রাম্প কী ধরণের মানুষ, কী ধরণের বিকৃতমস্তিষ্ক।”

২২ বছর বয়সে ট্রাম্পের রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠানের রিসিপশনিস্ট থাকার সময়ে লিফটে ট্রাম্প জোর করে ঠোটে চুমু খেয়েছিলেন বলে অভিযোগ ক্রুকসের।

“আমি হতভম্ব, বিধ্বস্ত হয়ে গিয়েছিলাম,” বলেন তিনি।

তিন নারীর সব অভিযোগই অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউস।

“এসব মিথ্যা অভিযোগ, প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতেও যেগুলো ছিল সম্পূর্ণ বিতর্কিত; গত বছর নির্বাচনী প্রচারণায় দীর্ঘ সময় ধরে এগুলো নিয়ে কথা হয়েছে, মার্কিন জনগণ অসাধারণ এক বিজয় উপহার দিয়ে এ বিষয়ে তাদের রায় জানিয়েছে,” সোমবার এক বিবৃতিতে বলে হোয়াইট হাউস।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য