বীরগঞ্জে বিষমুক্ত অর্গানিক পদ্ধতিতে খাদ্যশষ্য উৎপাদন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন বীরগঞ্জের চাষি বাবু নিত্যানন্দ সাহা।

ভেজাল-রাসায়নিক সার ব্যবহারে পরিবেশ ও ফসলী জমির মারাত্মক ক্ষতি ছাড়াও মানুষের জীবন নিয়ে যে সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে,এ থেকে পরিত্রাণ পেতে ও উৎপাদিত খাদ্যশস্যের স্বাদ ফিরিয়ে আনতেই অর্গানিকভাবে উৎপাদনে এগিয়ে এসেছেন বাবু নিত্যানন্দ সাহা।

তিনি তিন ধরনের উন্নত জাতের লাউ চাষ করছেন। এগুলো হল- মার্শাল সুপার হাইব্রিড (এসিআই), হাইগ্রীন হাইব্রিড (মেটাল সিড) এবং স¤্রাট হাইব্রিড (ইসপাহানি)।

এরই মধ্যে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে তিনি সবজি জাতীয় ফসল লাউএর পাশাপাশি মরিচ, পেপে, শাকসবজিসহ কয়েক প্রকারের ফসল উৎপাদন করছেন। তার নিজস্ব জমিতে গড়ে তুলেছেন গাঁদা ফুলের নার্সারী।এতে তিনি রাসায়নিক সারের বদলে ব্যবহার করেছেন জৈব সার ও নিমের তেল এর ম্প্রে।

বীরগঞ্জ পৌর শহরের চাষি নিত্যানন্দ সাহা জানান, পোকামাকড়ের হাত থেকে রক্ষা করতে উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের শরণাপন্ন হই। তাদের পরামর্শে আমি জৈবিক বালাই দমন ফাঁদ বা সেক্স ফেরোম্যান ট্রাপ পদ্ধতি গ্রহণ করি। কোন প্রকার পূর্ব অভিজ্ঞতা ছাড়াই আমি এর ব্যাপক সফলতা পেয়েছি। আমি কোন প্রকার রাসায়নিক সার ব্যবহার করিনি।তবে ব্যবহার করেছি জৈব সার ও নিমের তেল এর ম্প্রে, যাতে পোকা মাকড় না আসে।

তিনি জানান, আমার ১৩ শতক নিজ জমিতে মাস খানেক আগে শুরু করি উন্নত জাতের লাউ চাষ। লাউ দেখে রাস্তার পাশ দিয়ে যাওয়া এলাকাবাসীরা নজর কেড়েছে। তাই তারা অনেকেই আমার ক্ষেতের লাউ এর স্বাদ গ্রহন করেছেন। আমি চাই আমাদের প্রয়োজনেই পরিবেশকে রক্ষা করার সাথে সাথে ভেজাল বিষমুক্ত খাদ্য খেয়ে আমরা সুস্থ জীবনযাপন করি।

তিনি জানান, কীট নাশক ব্যবহার ছাড়াই অর্গানিক পদ্ধতি কৃষিতে ব্যবহারে আকৃষ্ট করতে পারলে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে দেশের কৃষক এবং বিষমুক্ত হবে আমাদের ফসল

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য