কুড়িগ্রাম জেলার রাজিবপুর উপজেলায় সাবিনা ইয়াসমিন (৩০) নামের এক গার্মেন্টস কর্মীকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় সন্দেহ ভাজন দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ। মোহনগঞ্জের ইউনিয়নের নয়াচরের নিজ বাড়ি থেকে ঢুষমারা থানা পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।ধর্ষণ ও হত্যাকান্ডের বিষয়ে আটককৃত দের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

দুই জনকে আটকের কথা স্বীকার করে ঢুষমারা থানার ওসি মাসুদ পারভেজ বলেন, মেয়েটিকে যে বাড়িতে রাখা হয়েছিল সেই বাড়ির মালিক মোকবুল হোসেন এবং যে খেয়ার নৌকায় ব্রহ্মপুত্র নদী পার করা হয়েছিল সেই নৌকার মাঝি ইকবাল হোসেনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছি।তিনি আরও বলেন প্রাথমিক ভাবে আমরা সন্দেহ করছি এই দুজন ঘটনার সঙ্গে জড়িত আছে।

গত বুধবার (৬ ডিসেম্বর) রাজিবপুর উপজেলার মোহনগঞ্জ ইউনিয়নের নয়াচর এলাকার পশ্চিম চর থেকে গার্মেন্টকর্মী সাবিনা ইয়াসমিনের লাশ উদ্ধার করে ঢুষমারা থানা পুলিশ। পুলিশের ধারণা করছে, সাবিনাকে গণধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। সাবিনার বাবার নাম মোসলেম উদ্দিন অরফে শোটকা মন্ডল।তাঁর বাড়ি উপজেলার মোহনগঞ্জ ইউনিয়নের সন্নাসীকান্দি চরে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য