জাতীয় মহিলা সংস্থা দিনাজপুর জেলা শাখাঃ বাংলার নারী জাগরণের অগ্রদূত মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার ১৩৭তম জন্ম ও ৮৫তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করেছে জাতীয় মহিলা সংস্থা দিনাজপুর জেলা শাখা। বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপনে ৯ ডিসেম্বর শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় শহরের মুন্সিপাড়াস্থ জাতীয় মহিলা সংস্থা জেলা শাখার অফিস কমপ্লেক্সে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভার।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত জননেতা এম. আব্দুর রহিমের সহধর্মীনি বিশিষ্ট সমাজসেবক নাজমা রহিম। সংস্থার চেয়ারম্যান তারিকুন বেগম লাবুন প্রধান অতিথিকে উত্তরীয় পড়ান এবং সংস্থার পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন।

নাজমা রহিম তাঁর বক্তব্যে বলেন, সাহিত্যচর্চা, সংগঠন পরিচালনা ও শিক্ষা বিস্তারের মাধ্যমে বেগম রোকেয়া সমাজ সংস্কারে এগিয়ে আসেন এবং স্থাপন করেন উজ্জ¦ল দৃষ্টান্ত। রক্ষনশীল পরিবারে জন্মগ্রহন করেও বেগম রোকেয়া নারী শিক্ষা ও সমাজ সংস্কারে সাহস প্রদর্শন করেছেন। তাঁর আদর্শ, কর্মময় জীবন চলমান সমাজে নারীদের জন্য অন্তহীন প্রেরণার উৎস।

জাতীয় মহিলা সংস্থা জেলা শাখার চেয়ারম্যান তারিকুন বেগম লাবুন এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট নারী নেত্রী রাজিয়া সরকার, সংস্থার কার্যকরি কমিটির সদস্য ছবি সিনহা। শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সংস্থার কম্পিউটার প্রশিক্ষনার্থী শামীমা নাসরিন সেতু।  বক্তারা বলেন, ঊনবিংশ শতাব্দীর কুসংস্কারাচ্ছন্ন রক্ষণশীল সমাজের শৃঙ্খল ভেঙ্গে বেগম রোকেয়া নারী জাতির মধ্যে ছড়িয়ে দেন শিক্ষার আলো।

তিনি তাঁর ক্ষুরধার লেখনির মাধ্যমে নারীর প্রতি সমাজের অন্যায় ও বৈষম্যমূলক আচরণের মূলে আঘাত হানেন। তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপনসহ বিভিন্ন সমাজ উন্নয়নমূলক কাজের মধ্য দিয়ে পশ্চাৎপদ নারী সমাজকে আলোর পথ দেখান। সকল নারীকে বেগম রোকেয়ার দেখানো আলোর পথকে অনুসরন করে এগিয়ে যেতে হবে। আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে মহিলা সংস্থার জেলা কো-অর্ডিনেটর মো. আব্দুল হামিদসহ জেলা মহিলা সংস্থার সকল ট্রেডের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও প্রশিক্ষনার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভাটি সঞ্চালনা করেন সংস্থার মাঠ সমন্বয়কারী মোছা. নাজরিন সরকার।

দিনাজপুর মহিলা পরিষদঃ নারীমুক্তি ভাবনায় বেগম রোকেয়ার স্বাপ্নিক বহুদূরগামী দৃষ্টিভঙ্গী আজ বাংলাদেশের নারী আন্দোলনের বহুমাত্রিক কর্মকান্ডে প্রতিফলিত উল্লেখ করে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি কানিজ রহমান বলেছেন, সশিক্ষায় সপ্রচেষ্টায় গড়ে ওঠা, জেগে ওঠা শতাব্দীর অগ্রপথিক বেগম রোকেয়া আমাদের সমাজে বিরাজমান সকল প্রকার গোঁড়ামি, অন্ধত্ব, কুসংস্কার- নারীর দাসত্ব অবমাননার বিরুদ্ধে নারী-পুরুষের সমতার পক্ষে, নারীর ক্ষমতায়নের পক্ষে, অগ্রসর জীবন ও সমাজ ভাবনার এক সমাজ সংস্কারক। রোকেয়া ও তাঁর চিন্তা -ধারা বাংলাদেশের নারী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় ভাবনায় ও কর্মে আছে। ৯ ডিসেম্বর শনিবার বিকাল ৪টায় সংগঠনের কার্যালয়ে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখা আয়োজিত বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যু দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, দিনাজপুর জেলা শাখায় সাধারণ সম্পাদক ড.মারুফা বেগম। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ সভাপতি আয়শা সরকার, সহ-সাধারণ সম্পাদক মনোয়ারা সানু, লিগ্যাল এইড সম্পাদক জিন্নুরাইন পারু,অর্থ সম্পাদক রতœা মিত্র, এবং পাড়া কমিটির সদস্য গোলেনুর,সুফিয়া,মিষ্টি,নাজমা,রেহেনা প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক রুবিনা আকতার।

পল্লীশ্রী দিনাজপুরঃ ৯ ডিসেম্বর শনিবার পল্লীশ্রী কর্তৃক আয়োজিত ব্রেড ফর দ্যা ওয়ার্ল্ড-জার্মানী সহযোগীয় বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে-র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বীরগঞ্জ উপজেলার ১০নং মহনপুর ইউনিয়নের চকমহাদেবপুরে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথী মো: হামিদুর রহমান হামিদ, ইউপি সদস্য বলেন-স্বাধীনতার পরবর্তী হতে এ সময় পর্যন্ত অনেকাংশে নারীর অগ্রগতি হয়েছে, নিশ্চিতভাবেই ঘরে, কর্মক্ষেত্রে, সামাজিক ক্ষেত্রে নারীরা অনেক এগিয়েছে । আজ বাংলার নারীরা সকল ক্ষেত্রে সম্পৃক্ত হয়ে সফলতার মধ্যে দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে, কোথায় নেই নারীরা । পাইলট, পর্বতে আরোহন করছে, নারী আজ প্রধানমন্ত্রী, স্পীকার । মানব মুক্তির সঙ্গে নারী মুক্তির ব্যাপারটি যেমন জড়িত, তেমনি নিবীড়ভাবে জড়িয়ে আছে বেগম রোকেয়ার নাম । তিনি ছিলেন একাধারে সংগ্রামী, দার্শনিক ও মাঠকর্মী । এক কথায় একজন পরিপূর্ণ মানুষ । মানব মুক্তির সংগ্রামের সঙ্গে সঙ্গে নারী মুক্তির সংগ্রামকে এগিয়ে নিতে হলে রোকেয়ার জীবন দর্শন থেকে শিক্ষা নেয়ার কোন বিকল্প নেই বলে তার বক্তব্য শেষ করেন । র‌্যালী ও আলোচনা সভা পরিচালনা করেন তারাপদ রায়, প্রোগ্রাম ফ্যাসিলিটেটর, পল্লীশ্রী, বীরগঞ্জ এবং সভাপতিত্ব করেন মোছা: রুখছানা বেগম ।

কর্মজীবী নারী দিনাজপুর জেলা শাখাঃ নারী জাতির অহংকার বেগম রোকেয়া দিবসে কর্মজীবী নারী দিনাজপুর জেলা শাখা ৯ ডিসেম্বর শনিবার সরকারী কলেজ মোড় সম্মুখ সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। কর্মসূচীর উদ্বোধন করতে গিয়ে কর্মজীবী নারী দিনাজপুরের সাধারণ সম্পাদক মৌসুমী ফেরদৌস, সহ সভাপতি মাসুদা বেগম মুক্তা, এ্যাডঃ ছন্দা রানী দাস, বিলকিস আরা, দিতি বালা, রাধা বালা বলেন, অন্ততপক্ষে মেয়েদের প্রাথমিক শিক্ষা দিতে হবে। বেগম রোকেয়ার আদর্শ প্রতিটি নারীকে পালন করতে হবে। পাশাপাশি নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতার বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে। আমরা ঘরের কোন আসবাব নই বা জড়োয়া অলংকার নই যে লোহার সিন্দুকে আবদ্ধ করে রাখবে। আমরাও মানুষ। এই অধিকার প্রতিষ্ঠা করার জন্যই বেগম রোকেয়ার জন্ম হয়েছিল।

জাতীয় নারী জোট দিনাজপুর জেলা শাখাঃ ৯ ডিসেম্বর শনিবার বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে জাতীয় নারী জোট দিনাজপুর জেলা শাখা সরকারি কলেজ সম্মুখে মানববন্ধন কমসূচী পালন করে। কর্মসূচীর উদ্বোধণ করতে গিয়ে জেলা জাসদের সভাপতি এ্যাডঃ লিয়াকত আলী বলেন, আমরা নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে প্রতিটি নারীকে স্বোচ্চার করে তুলতে চাই। নারীদের আদর্শ গৃহিনী ও আদর্শ মাতারুমে দেখার পাশাপাশি সকল প্রকার সহিংসতার প্রতি নারীদের স্বোচ্চার হিসেবে দেখতে চাই। মানববন্ধনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় নারী জোটের সভাপতি এ্যালমা লতিফ শিল্পী, শহর শাখার সাধারণ সম্পাদক নাজমা বেগম, সামসুন্নাহার, জেলা জাসদের দপ্তর সম্পাদক এ্যাড ইন্দ্রোজিত রায় অনিক, শহর জাসদের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম রিয়াজ, মাধবী আলো ও শহর শাখার সাধারণ সম্পাদক সুবর্ণা আক্তার।

বিরলঃ বিরলে বেগম রোকেয়া দিবস-২০১৭ উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে বিরল উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের আয়োজনে দিবসটি উপলক্ষ্যে উপজেলা চত্বর হতে একটি র‌্যালী বের হয়ে পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালীর অগ্রভাগে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ,বি,এম রওশন কবীর, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুনা পারভীন, থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আওলাদ হোসেন, বিরল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু হাসান, বিরল মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সুফিয়া নাহার মঞ্জু, আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়েল প্রধান শিক্ষক মহিউদ্দীন আহাম্মেদ প্রমূখ। র‌্যালী শেষে উপজেলা পরিষদ মিলানায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বোচাগঞ্জঃ ৯ ডিসেম্বর শনিবার সকালে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে এবং জাতীয় মহিলা সংস্থা, প্রত্যাশা বাংলাদেশ দীপশিখা ও রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত নারী সংগঠন সমুহের সহযোগিতায় আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০১৭ উদযাপন উপলক্ষ্যে “জয়িতা অন্বেষনে বাংলাদেশ” কার্যক্রমের আওতায় জয়িতাদের সম্বর্ধনা প্রদান, র‌্যালী ও আলোচনা সভা করা হয়। সকাল ১০টায় উপজেলা গেটে মানববন্ধন শেষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী সেতাবগঞ্জ পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে উপজেলা মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সারওয়ার মোর্শেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুন নাহার মুক্তি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শামীম আজাদ, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছাঃ জুলেখা বেগম, জাতীয় মহিলা সংস্থা বোচাগঞ্জ উপজেলা শাখার চেয়ারম্যান মোছাঃ হনুফা বেগম, সেতাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ সাব্দুস সাত্তার, সেতাবগঞ্জ মহিলা ক্রেডিট ইউনয়নের সভাপতি লায়লা মোতালেব প্রমুখ। আলোচনা শেষে জিনোর গ্রামের অনি বালার হাতে জয়িতা ক্রেস্ট তুলেদেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।

ফুলবাড়ীঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে গতকাল শনিবার আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস পালন করা হয়েছে। বেসরকারি সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ ফুলবাড়ী এডিপি`র সহযোগিতায় সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে পৌর শহরে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুস সালাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাকেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. নূরুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এটিএম হামীম আশরাফ, উপজেলা প্রকৌশলী মো. শাহিদুজ্জামান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) শফিকুল ইসলাম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সমশের আলী মন্ডল, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. আখতারুজ্জামান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রীতা মন্ডল, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. ইসমাইল হোসেন, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি’র সভাপতি নাজিম উদ্দিন মন্ডল, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি’র সভাপতি সঞ্জয় চক্রবর্তী, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি’র সাধারণ সম্পাদক আবদুল আলিম প্রমুখ।

পার্বতীপুরঃ দিনাজপুরের পার্বতীপুরে নানা আয়োজনে আজ শনিবার (৯ ডিসেম্বর) ‘আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ’ও ‘বেগম রোকেয়া দিবস’ পালিত হয়েছে। বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে ‘জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ’ শীর্ষক কার্যক্রমের আওতায় বেগম রোকেয়া দিবসে শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য উপজেলা পর্যায়ে নির্বাচিত ‘শ্রেষ্ট জয়িতা’ জেরিনা খাতুন কে সংম্বর্ধনা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে মহীয়সি নারী বেগম রোকেয়ার সম্মানে মঞ্চে মঙ্গল প্রদীপ জ¦ালিয়ে নৃত্য পরিবেশন করেন স্থানীয় ল্যাম্ব হাসপাতালের শিল্পীরা। পরে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরফদার মাহমুদুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও ইয়ংস্টার ক্লাবের সভাপতি আমজাদ হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহিদা খাতুন, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক প্রামানিক (রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত), উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ট জয়িতা হিসেবে সংম্বর্ধিত জেরিনা খাতুন, প্রেসক্লাবের সভাপতি শআম হায়দার, ল্যাম্ব হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা এনোস সরেন ও পাবলিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুল ইসলাম প্রমুখ। প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরফদার মাহমুদুর রহমান বলেন, রোকেয়া ছিলেন নারী জাগরনের অগ্রদুত। তাঁর নেতৃত্বে ও লেখনীর মাধ্যমে নারীরা নির্যাতনের হাত থেকে মুক্তি পাচ্ছে। বেগম রোকেয়ার কর্ম ও জীবন সম্পর্কে জানার জন্য তিনি সবার প্রতি আহবান জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য