06_Kenya কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে জোড়া বিস্ফোরণে ৬ জন নিহত হয়েছেন। এ হামলার ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো বেশ কয়েকজন।  সোমবার নাইরোবির “ছোট মোগাদিসু” নামে পরিচিত সোমালি অধ্যুষিত ইস্টলেইগ শহরতলিতে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে দেশটির কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিবিসি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওই দিন সন্ধ্যায় লোকজন ঘরে ফেরার সময় ইস্টলেইগের একটি বাসস্টপ ও ফুটপাতের একটি খাবারের দোকান লক্ষ করে বিস্ফোরকভরা বস্তু ছুঁড়ে মারা হয়। কেনিয়ার স্ট্যান্ডার্ড সংবাদপত্র জানিয়েছে, ওই এলাকার ১১তম স্ট্রিটে ৫০ মিটার ব্যবধানে জোড়া বিস্ফোরণের ঘটনা দুটি ঘটেছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে সংবাদপত্রটি। বিস্ফোরকভর্তি বস্তু দুটিকে “গ্রেনেড” বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। ইস্টলেইগ এলাকাটিতে এর আগেও বেশ কয়েকবার গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছে। ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে এমনই এক গ্রেনেড হামলায় চারজন নিহত হয়েছিলেন। মাত্র এক সপ্তাহ আগে কেনিয়ার বন্দর শহর মোম্বাসার একটি গির্জায় প্রার্থনারত খ্রিস্টানদের ওপর গুলিবর্ষণ করে ও বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ৬ জনকে খুন করা হয়। পরিস্থিতি মোকাবিলায় শহরে বসবাস করা সব সোমালি নাগরিককে তাদের জন্য নির্ধারিত শরণার্থী শিবিরে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেনিয়া সরকার। কেনিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, এমন নির্দেশ দেয়া হয়েছে কারণ “গুরুতর নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ” মোকাবিলা করছে কেনিয়া। প্রতিবেশী দেশ সোমালিয়ার আল কায়েদার সঙ্গে সম্পর্কিত গোষ্ঠী আল শাবাব জঙ্গিদের দমনে দেশটির সরকারকে সহায়তা করতে কয়েক হাজার কেনীয় সেনা সেখানে মোতয়েন রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য