আফ্রিকার দেশ ডিআর কঙ্গোর পূর্বাঞ্চলে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনের একটি ঘাঁটিতে বিদ্রোহীদের হামলায় অন্তত ১৫ শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও ৫৩ জন।

জাতিসংঘ মিশনের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সেমুলিকি শহরে ওই ঘাঁটিতে অ্যালায়েড ডেমোক্রেটিক ফোর্স নামের ওই বিদ্রোহী গ্রুপের হামলার পর থেকে আরও তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন।

বিবিসি লিখেছে, এই হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল তানজানিয়ার শান্তিরক্ষীরা। ডিআর কঙ্গোর সামরিক বাহিনীর পাঁচ সদস্যও হামলায় নিহত হয়েছেন।

জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস এ ঘটনাকে সাম্প্রতিক সময়ে শান্তিরক্ষীদের ওপর সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী হামলা হিসেবে বর্ণনা করেছেন। নিহত শান্তিরক্ষীদের দেশ তানজানিয়ার মানুষের কাছে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন তিনি।

ডিআর কঙ্গোতে ইউনাইটেড নেশনস অর্গানাইজেশন স্ট্যাবিলাইজেশন মিশনের প্রধান মামান সিদিকু বলেন, “আমি এই হামলার কঠোর নিন্দা জানাই। হামলাকারীদের বিচারের মুখোমুখি করতে সব ধরনের পদক্ষেপই আমরা নেব।”

জাতিসংঘ শান্তি মিশনের দায়িত্বে থাকা আন্ডার সেক্রেটারি জেনালে জ্য-পিয়েরে ল্যাঁক্রুয়ার বলেছেন, ওই ঘাঁটিতে আরও সৈন্য পাঠানো হয়েছে এবং আহতদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

ডিআর কঙ্গোর ওই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ পাওয়ার চেষ্টায় বিদ্রোহীদের বিভিন্ন গ্রুপের মধ্যে সংঘাত চলছে বেশ কয়েক বছর ধরে। জাতিসংঘ ২০১০ সালে সেখানে শান্তি মিশনের কার্যক্রম শুরু করে।

বিবিসি জানিয়েছে, বর্তমানে ডিআর কঙ্গোর এই মিশনই জাতিসংঘের সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে ব্যয়বহুল শান্তিরক্ষা মিশন।

চলতি বছরের শুরুতে এ মিশনে শান্তিরক্ষীর সংখ্যা ১৯ হাজার থেকে তিন হাজারে নামিয়ে আনার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল জাতিসংঘ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য