ইন্দোনেশিয়ায় ঘূর্ণিঝড় দাহলিয়া’র তাণ্ডবে অন্তত ২০ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। শনিবার দেশটির ন্যাশনাল বোর্ড ফর ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট-এর এক বিবৃতিতে নিহতের এ সংখ্যা জানানো হয়েছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন কমপক্ষে পাঁচজন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় দুই হাজার ঘরবাড়ি। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসে এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডব থেকে বাঁচতে ঘরবাড়ি ছেড়ে অপেক্ষাকৃত নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছেন উপদ্রুত এলাকার হাজারো মানুষ। এদের বেশিরভাগই আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন। সরকারিভাবে তাদের ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে শুকনো খাবার, শিশুদের খাবার ও ওষুধসহ প্রয়োজনীয় সামগ্রী।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ২৭ নভেম্বর থেকে সাতদিনের জরুরি ত্রাণ সহায়তা ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। এক হাজার ১৭৪ জন সেনা ও পুলিশ সদস্য এতে অংশ নিয়েছেন।

ন্যাশনাল বোর্ড ফর ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট-এর বিবৃতিতে জানানো হয়েছে নিখোঁজ ব্যক্তিদের খোঁজে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার দেশটির জাভা এলাকায় সেমপাকা নামের আরেকটি ঝড়ের তাণ্ডবে অন্তত ২৭ জন নিহত হন।

সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য