দিনাজপুর সংবাদাতাঃ যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণ প্রতিরোধ এবং সংঘটিত ঘটনার দ্রুত বিচারের দাবীতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে। স্মারকলিপি গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম ও পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম।

৩০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম ও পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম বরাবর বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হোসনে আরা ও সাধারণ সম্পাদক ড. মারুফা বেগম স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে বলা হয় দেশব্যাপী নারীর প্রতি সংঘটিত যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের ঘটনায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ গভীর উদ্বেগ, তীদ্র নিন্দা, ক্ষোভ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছে।

মধ্যযুগীয় বর্বরতায় শিশুর উপর পাশবিক নির্যাতনগুলো সমাজে বেড়েই চলেছে। এ ধরনের ঘটনাগুলোর যথাযথ তদন্ত ও সুষ্ঠু বিচার না হওয়া এবং প্রশাসনের উদাসীনতার করণে এই ভয়াবহ ক্রমবর্ধমানতা। নারীর লজ্জা সম্ভ্রম এভাবে ভুলুন্ঠিত হতে থাকলে সমাজে উন্নয়নের স্রোতধারা বাধাপ্রাপ্ত হবে। ধর্মান্ধতা বাড়বে, মানবিক মূল্যবোধের এই অবক্ষয় রোধ করতে তাই মহিলা পরিষদের জোর দাবী।

স্মারকলিপিতে ৪ দফা দাবী বাস্তবায়নের আহবান জানানো হয়। দাবীগুলো হলো (১) ধর্ষণের সাথে সরাসরি সকল অপরাধীতে এবং মদদদাতাকারীদের আইনের আওতায় নিয়ে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। (২) নারীর প্রতি সকল ধরনের সহিংসতার ঘটনা থানায় আসা মাত্রই সংশ্লিষ্ট থানাকে অভিযোগটি গ্রহণ করতে হবে।

এক্ষেত্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসারের কোন প্রকান অবহেলা পরিলক্ষিত হলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে (৩) ধর্ষণকারীদের বিশেষ ট্রাইব্যুনালের আওতায় এনে দ্রুত বিচার ব্যবস্থার সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে এবং (৪) অর্থের বিনিময়ে এবং ক্ষমতার দাপটে নারীর প্রতি সহিংসতার কোন ঘটনাকে কোনভাবেই ভিন্নখাতে প্রবাহিত করা যাবে না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর মহিলা পরিষদের সহ-সাধারণ সম্পাদক মনোয়ারা সানু, অর্থ সম্পাদক রতœামিত্র, সদস্য জেসমিন, মিতালী প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য