মোঃ লিহাজ উদ্দীন মানিক, বোদা (পঞ্চগড়) থেকেঃ পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়নের আগুনতলা গ্রামে গত বুধবার রাতে শারমিন আক্তার (২৩) নামের এক গৃহবধূর রহস্য জনক মৃত্যু হয়েছে।

এ ব্যাপারে বোদা থানার পুলিশ মৃত গৃহবধুর শশুর জুয়েলকে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি থেকে আটক করেছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, গত বুধবার রাতে গৃহবধু শারমিন বিষ খেয়েছে বলে অসুস্থ অবস্থায় তাকে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বিষ খাওয়ার সাথে সাথে তার বাবার বাড়িতে খবর দেয়া হয়। তার বাবা তাৎক্ষনিক খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারে যে তার মেয়েকে নির্যাতন করে মুখে বিষ প্রয়োগ করা হয়েছে। মৃত অবস্থায় তাকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। তার বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বোদা থানার পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

এ প্রতিনিধিকে মৃত গৃহবধুর পিতা শাহজউদ্দীন জানান তার মেয়ে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে। মাত্র ৩ বছর আগে সেনাবাহিনীতে কর্মরত ফরিদুল ইসলামের সাথে তার বিয়ে হয়েছে। অকালে ১১ মাস বয়ের এক শিশু সন্ধানকে রেখে শশুর বাড়ির লোকজনের অত্যাচার নির্যাতনের শিকার হয়ে তাকে মৃত্যু বরণ করতে হয়েছে। এ বিষয়ে তিনি বাদী হয়ে বোদা থানায় এক হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে বোদা থানার অফিসার ইনচার্জ এ,কে,এম নুরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান মৃত শারমিন আক্তারের পিতা ৫ জনকে আসামীকে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। সাথে সাথে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকী আসামীদের আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য