হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলির রূপে ভুলে জেনিফার অ্যানিস্টনকে ছেড়ে আসা জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন অভিনেতা ব্র্যাড পিট।তিনি বলেছেন, এখন তাঁর আর জেনিফারের সঙ্গে পুরনো সম্পর্ক ঝালিয়ে নেওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। তবে বুঝতে পারছেন, আজও তাঁকে কতটা ভালবাসেন তিনি।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, নয় বছর লিভ ইন করার পর তিন বছর আগে বিয়ে করেন হলিউডের দুই তারকা ব্র্যাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। কিন্তু গত বছর ব্র্যাঞ্জেলিনার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

এ সম্পর্কে ব্র্যাড জানিয়েছেন, এখন নিজেকে স্পষ্ট করে দেখছেন তিনি, নিজের আবেগ পরিষ্কার বুঝতে পারছেন।

২০১৫ সালে জেনিফারও ওয়ান্ডারলাস্টে তাঁর সহ অভিনেতা জাস্টিন থেরক্সকে বিয়ে করেছেন। ব্র্যাড বলেছেন, জেনিফারের নতুন সংসার তছনছ করার তাঁর কোন ইচ্ছে নেই। কিন্তু মনে মনে তাঁকেই ভালবেসে যাবেন তিনি।

মিস্টার অ্যান্ড মিসেস স্মিথে অভিনয় করতে গিয়ে অ্যাঞ্জেলিনার প্রেমে পড়েন ব্র্যাড পিট। সে সময় তিনি জেনিফারের সঙ্গে বিবাহসূত্রে আবদ্ধ ছিলেন। স্ত্রীর সব আবেদন, অনুরোধ অগ্রাহ্য করে তাঁকে ডিভোর্স দেন তিনি। জেনিফার এই সিদ্ধান্তে ভেঙে পড়েছিলেন। তারপর ১১ বছর ধরে চলে ব্র্যাঞ্জেলিনা জুটির রূপকথা।

শোনা যাচ্ছে, তাঁকে ছেড়ে অ্যাঞ্জেলিনার কাছে যাওয়ার জন্য মাস দুয়েক আগে ব্র্যাড ক্ষমা চেয়েছেন জেনিফারের কাছে। প্রাক্তন স্বামীকে ক্ষমা চাইতে দেখে জেনিফার নাকি কেঁদে ফেলেন, বহু বছর ধরে মনে পুষে রাখা তিক্ততা ধুয়ে যায় চোখের জলে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য