দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার জীবনপুর গ্রামের মফিজ উদ্দীনের স্ত্রী শেফালী বেগম। তাহার রক্তের গ্রুপ ও নেগেটিভ।

একারণে জন্মের প্রথম দিনেই তার সন্তানের মারাত্মক জয়েডিস হয় এবং ৩ থেকে ৪ দিনের মধ্যে মারা যায়।

এভাবে তিনি পর পর ৪টি সন্তান হারান। ৫ম সন্তানের সময় গাইনী বিশেষজ্ঞ ডাঃ বেগম আইনুন নাহার এর পরামর্শে বিশিষ্ট শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ শেখ ফরিদ আহমেদের স্মরণাপন্ন হন।

ডাঃ শেখ ফরিদ শিশুটিকে জন্মের পর পরই এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। তিনি নাভীর শিরায় ক্যাথেটার প্রবেশ করিয়ে পর পর ২ দিন পুরো ব্যাগ রক্ত এক্সচেঞ্জ ট্রান্সফিউশন করেন।

২৮ নভেম্বর মঙ্গলবার পর্যন্ত শিশুটি সম্পূর্ণ সুস্থ্য থাকায় তাহাকে হাসপাতাল হইতে ছুটি প্রদান করা হয়। অত্র হাসপাতালে ডাঃ শেখ ফরিদের এটি ৩য় বার সাফল্য প্রসিজিওরটি করতে সক্ষম হয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য