আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট থেকে: ৬ কোটি টাকার ব্যয়ে নির্মাণাধীন থানা ভবণ উদ্বোধনের জন্য লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় আসছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় নবনির্মিত থানা ভবন উদ্বোধনী ফলক উম্মোচন ও ১১টায় সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে বলে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় এমপি ও বীর মুক্তিরযোদ্ধা মোতাহার হোসেন।

মন্ত্রীর সফর সূচি সূত্রে জানা গেছে,সারা দেশে পুলিশ বিভাগের ১০১ টি জরাজীর্ণ থানা ভবন টাইপ প্লানে নির্মাণের উদ্যোগে একটি প্রকল্প হাতে নেয় সরকার। স্বারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অর্থায়নে এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায় গণপূর্ত বিভাগ। ওই প্রকল্পের আওতায় লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধায় ৬ কেটি ৮ লক্ষ ৫৮ হাজার টাকা ব্যায়ে নির্মাণ হয়েছে ৪ তলা বিশিষ্ট্য অত্যাধুনিক একটি থানা ভবন।

ওই ভবনে রয়েছে, পুরুষ, নারী, শিশু ও কিশোরের জন্য পৃথক পৃথক উন্নত মানের ৪ টি হাজত খানা, প্রাথমিক চিকিৎসা কেন্দ্র, ডিএসবি, এসআই, এএসআইদের জন্য পৃথক পৃথক অফিস। নারী ও পুরুষ পুলিশ সদস্যদের জন্য পৃথক পৃথক উন্নত মানের ২ টি ব্যারাক, কনফারেন্স রুম, অত্যাধুনিক নিরাপদ অস্ত্রঘর, অধুনিক সার্ভিস ডেলিভারী রুম ও অভ্যর্থনা কেন্দ্র। সুত্র মতে, হাতীবান্ধা থানা ভবনটি নিমার্ণের জন্য ২০১৪ সালের ২৯ মার্চ ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি’র সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার হোসেন এমপি।

স্বারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অর্থায়নে গণপূর্ত বিভাগের আওতায় ৩ বছর ৮ মাসে এ ভবন নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে শেষ করেছেন মেসার্স হাকিম ট্রেডার্স নামে স্থানীয় একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ভবন নির্মাণ কাজের দেখ-ভালের দায়িত্বপ্রাপ্ত লালমনিরহাট গর্ণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী কামাল হোসেন জানান, সকল নিয়ম নীতি মেনে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই হাতীবান্ধা থানা ভবন নির্মাণ হয়েছে। ইতিমধ্যে লালমনিরহাট গর্ণপূর্ত বিভাগ পুলিশ বিভাগের কাছে ভবনটি হস্তান্তর করেছেন। ফলে সারা দেশে অত্যাধুনিক পুলিশ ভবন নির্মাণের অংশ হিসেবে হাতীবান্ধা থানার নতুন ভবন উদ্বোধনের জন্য আগামী ৩০ নভেম্বর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি লালমনিরহাটে আসছেন। ফলে ওই এলাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা জোড়দার করা হয়েছে।

হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ শামীম হাসান সরদার জানান, এ ভবন নির্মাণ ও উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে জরাজীর্ণ থানা ভবনে সমস্যা সমাধান হবে। দীর্ঘদিন ধরে হাতীবান্ধায় জরাজীর্ণ থানা ভবনে কাজ করে আসছে পুলিশ বিভাগ। লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক জানান, অনেক এলাকায় জরাজীর্ণ ভবনে কাজ করে পুলিশ বিভাগ। ভবন না থাকায় পুলিশ বিভাগের অনেক কাজে সমস্যা হচ্ছে। হাতীবান্ধা থানা ভবনটি নিমার্ণ হওয়ায় পুলিশ বিভাগে কাজের গতি বাড়বে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান এমপি লালমনিরহাটের সফরকে ঘিরে এলাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা জোড়দার করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য