সিরীয় কুর্দি বাহিনীগুলোকে অস্ত্র সজ্জিত করার বিষয়টি পরিস্থিতির দাবি অনুযায়ী পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন।

তুরস্কের ক্ষোভের মুখে সোমবার এক বিবৃতিতে একথা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় (পেন্টাগন), খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

শুক্রবার আঙ্কারা জানিয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে ফোন করে সিরীয় কুর্দি যোদ্ধাদের অস্ত্র সরবরাহ করা উচিত নয় মর্মে নির্দেশনা জারি করেছেন বলে জানিয়েছেন।

সিরীয় কুর্দি যোদ্ধাদের অস্ত্র সরবরাহ করাকে নিজেদের জন্য হুমকি হিসেবে বিবেচনা করে তুরস্ক।

“আইএসআইএসকে পরাজিত করতে এবং তারা যেন ফিরে আসতে না পারে সে পরিস্থিতি নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সামরিক চাহিদা বিবেচনায় আমাদের কুর্দি অংশীদারদের দেওয়া সামরিক সহায়তার মুলতুবী থাকা সমন্বয়গুলো পর্যালোচনা করে দেখছি আমরা,” ইসলামিক স্টেটের (কথা) উল্লেখ করে এক বিবৃতিতে বলেন পেন্টাগনের মুখপাত্র এরিক পাহন।

রয়টার্স বলছে, যুক্তরাষ্ট্র কুর্দিদের অস্ত্র দেবে কি না, যুদ্ধক্ষেত্রের বাস্তবতার ওপরই তা নির্ভর করছে বলে পেন্টাগনের বিবৃতিতে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে।

সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র ও তাদের সমর্থিত বাহিনীগুলো আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করছে। সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থিত কুর্দি ও আরব গোষ্ঠীগুলোর সম্মিলিত জোট সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সের (এসডিএফ) মধ্যে কুর্দি ওয়াইপিজি গেরিলারাও আছে, যাদেরকে কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) অংশ মনে করে আঙ্কারা।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্রও দীর্ঘদিন ধরে তুরস্কে গৃহযুদ্ধ চালানো বিদ্রোহী গোষ্ঠী পিকেকে-কে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবেই বিবেচনা করে আসছে।

আইএসবিরোধী লড়াইয়ে ওয়াইপিজি গেরিলাদের মার্কিন অস্ত্র ও প্রশিক্ষণের সিদ্ধান্তে আগেও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিল আঙ্কারা। এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কেও টানাপোড়েন দেখা যায়।

পরে শুক্রবার আঙ্কারা জানায়, যুক্তরাষ্ট্র এই সহযোগিতা বন্ধের আশ্বাস দিয়েছে।

এর আগে রোববার সিরিয়ায় লড়াইরত মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের এক মুখপাত্র জানান, তারা এসডিএফকে অস্ত্র সরবরাহ ও প্রশিক্ষণের বিষয়টি পর্যালোচনা করে দেখছেন। সুনির্দিষ্ট কাজ অনুযায়ী সিরিয়ার ওয়াইপিজি গেরিলাদের সীমিত অস্ত্র সরবরাহ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন অবস্থান তুরস্ককে সন্তুষ্ট করবে কিনা, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন পর্যবেক্ষকরা।

সোমবার পেন্টাগনের বিবৃতির আগেই তুর্কি উপপ্রধানমন্ত্রী বেকির বোজদাগ বলেন, শুক্রবার ট্রাম্প ও এরদোয়ানের ফোনালাপ দুই দেশের সম্পর্কে উন্নতির লক্ষণ।

ওয়াশিংটনকে এজন্য সিরিয়ার কুর্দিদের অস্ত্র দেওয়া বন্ধ করে আঙ্কারার প্রত্যাশাকে সম্মান জানাতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

“প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের ‘আমরা অস্ত্র দেবো না’ মন্তব্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে বাস্তবায়িত না হলে, এই কথা মূল্য হারাবে। এটা বিশ্বের সঙ্গে প্রতারণাও হবে,” বলেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য