ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় বাবরী মসজিদ-রাম মন্দির নিয়ে বিতর্কের মধ্যে সেখানে রাম মন্দির নির্মাণের ঘোষণা দিলো বিশ্ব হিন্দু পরিষদ।

২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর থেকে রাম মন্দির নির্মাণ কাজ শুরু হবে বলে আজ (রোববার)বিশ্ব হিন্দু পরিষদের আন্তর্জাতিক যুগ্ম সচিব সুরেন্দ্র কুমার জৈন ঘোষণা করেছেন। কর্ণাটকে ধর্মসংসদ সভায় তিনি ওই ঘোষণা দিয়েছেন। মন্দিরের প্রশাসনিক কাজে শুধুমাত্র হিন্দুদেরই নিয়োগ করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

গত শুক্রবার একই অনুষ্ঠান থেকে হিন্দুত্ববাদী রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সঙ্ঘ (আরএসএস) প্রধান মোহন ভাগবত অযোধ্যায় রাম জন্মভূমিতে কেবলমাত্র রাম মন্দিরই হবে, অন্য কিছু নয় বলে ঘোষণা করেন। এরপরে আজই সেখানে রাম মন্দির নির্মাণের জন্য তারিখ ঘোষণা করা হল।

বাবরী মসজিদ-রাম মন্দির ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টে মামলা বিচারাধীন আছে। আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে তার শুনানি শুরু হবে। কিন্তু তার আগেই হিন্দুত্ববাদীরা সেখানে রাম মন্দির নির্মাণের ঘোষণা দেয়ায় মুসলিমদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।
গিরিরাজ সিং

এদিকে, আজ (রোববার) কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা গিরিরাজ সিং মুসলিমদের সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন। তিনি আজ যোধপুরে গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ভারতে বাস করা মুসলিমরা বাবরের নয়, রামের বংশধর। উভয়ের ধর্মীয় রীতি ভিন্ন হলেও তাদের পূর্বপুরুষ একই। তিনি অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের জন্য শিয়া ও সুন্নীদের এগিয়ে আসা উচিত এবং সেখানে গ্র্যান্ড রাম মন্দির নির্মাণ হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন। এক প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং বলেন, কোটি কোটি মানুষের বিশ্বাসের প্রতীক ভগবান রামের মন্দির ভারতে হবে না তো কী পাকিস্তানে তৈরি হবে?

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য