দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার আঙ্গারপাড়া ইউপির পাকেরহাট গ্রামের গুন্দুশাপাড়ায় স্বামী-শাশুড়ীর অত্যাচার সহ্য করতে না পারায় পারভিন আক্তার (২৯) নামে ৩ কণ্যা সন্তানের জননী বিষপানে আত্বহত্যা করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল সকালে পারভিনের স্বামী আক্তারুল ইসলাম অহেতুক মারপিট করে ভ্যান নিয়ে বাইরে যাওয়ার পর তার মা আবারো পারভিন আক্তারকে বিভিন্ন খারাপ ভাষায় গালিগালাজ করে। একপর্যায়ে পারভিন গালিগালাজের উত্তর দিলে শ্বাশুরী লাঠি দিয়ে মারপিট করে। দুপুরে স্বামী বাড়িতে পৌঁছলে আবার স্বামী-শাশুড়ী মিলে আবার মারপিঠ করে। পারভিন মারধরের এক পর্যায়ে স্বামী-শাশুড়ীকে ধমক দিয়ে বলে আর একবার মার দিলে বিষ খাব।

তারা আবারো মারধর করার জন্য এগিয়ে আসলে পারভিন আক্তার ঘর থেকে আগের নিয়ে আসা বিষ বের করে তাদের সম্মুখে পান করে। বিষপানের কিছুক্ষণ পর পারভিন অজ্ঞান হয়ে পরলে তাৎক্ষনিক তার স্বামী পাকেরহাট হাসপাতালে ভর্তি করান। পারভিনের অবস্থা বেগতিক হওয়ায় দায়িত্বরত ডাক্তার তাকে দিনাজপুর মেডিকেলে প্রেরণ করেন এবং রাত ২.৩০ টায় মারা যান।

পারভিনের স্বামী আক্তারুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি নিজের মারপিঠের কথা অস্বীকার করে বলেন আমার স্ত্রী পারভিনের সাথে আমার মা প্রায় ঝগড়া করে। গতকালকেও ঝগড়ার এক পর্যায়ে আমার স্ত্রী আমাকে ফোন দিয়ে ডেকে এনে ঘরে গিয়ে বিষপান করে।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য আবু তালেব বাবুর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমরা এর আগেও বেশ কয়েকবার তাদের মধ্যে মিমাংশা করে দিয়েছি।

এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মতিন প্রধান বলেন, বিষয়টি আমাকে ইউপি চেয়ারম্যান মুঠোফোনে জানিয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ করে না। অভিযোগ করলে বিষয়টির সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, সুবর্ণখুলী গ্রামের হবিবর রহমানের মেয়ে পারভিন আক্তারের ১২ বছর আগে পাকেরহাট গুন্দুশাপাড়ার আক্তারুলের সাথে বিয়ে হয়। তাদের ১০, ৬ ও ৩ বছরের তিনজন কণ্যা সন্তান রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য