আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশ সংঘবদ্ধ অজ্ঞান পার্টির ৩ সদস্যকে আটক করেছে। আটককৃতদের মধ্যে একজন পুরুষ ও দুইজন মহিলা।

জানা গেছে, গাইবান্ধা পৌরসভাধীন প্রফেসর কলোনীর জনৈক আঞ্জুমান আরা বেগম (৫০) গত ১৬ নভেম্বর শহরের পোস্ট অফিস সংলগ্ন ডায়াবেটিস হাসপাতালে যায়।

সেখানে অজ্ঞাতনামা এক মহিলা আঞ্জুমান আরা বেগমকে ফুসলিয়ে তাজুল হোটেলের পার্শ্বে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ফলের জুসের সাথে চেতনা নাশক ঔষধ সেবন করিয়ে মোবাইল, স্বর্ণালংকার ও ভ্যানটি ব্যাগ চুরি করে নিয়ে যায়।

পরে আঞ্জুমান আরা বেগম অসুস্থ্য হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে গাইবান্ধা সদর থানায় মামলা করলে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঘটনার সাথে জড়িত মূল আসামী গাইবান্ধা সদর উপজেলার কুপতলা গ্রামের সরে মোহাম্মদ শেখসহ তার স্ত্রী শাহানা বেগম, একই এলাকার সাফি মিয়ার স্ত্রী শাপলা বেগমকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

এসময় আসামীদের নিকট থেকে তাৎক্ষনিক ভাবে চোরাই মোবাইল ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে। এছাড়াও আসামীদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বগুড়া জেলার সাখারিয়া নামাবালা এলাকার আমিনুল ইসলামের বাড়ী থেকে আরো কিছু স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে।

আসামীরা উত্তরাঞ্চলের সংঘবদ্ধ অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় সদস্য। তাছাড়া আসামী শাহানা ও তার স্বামী সরে মোহাম্মদের বিরুদ্ধে রংপুর কোতয়ালী থানায় একটি হত্যা মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানা রয়েছে বলে সদর থানা অফিসার ইনচার্জ খান মো. শাহরিয়ার কবির জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য