ছোটবেলায় দেখতাম কারও নাক দিয়ে রক্ত পড়লে মুরব্বিরা বলতেন- ‘ঝোপঝাড়ের বিন্না (এলাকার ভাষায়) নামের গাছে গিয়ে রক্ত ফেলে আয় তো’। এতে নাকি এ সমস্যা ভালো হয়। নাক চেপে ধরে ওই গাছ খুঁজতে খুঁজতেই রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যেত। নাকে জমাটবাঁধা রক্ত ওই গাছে ফেলার পর আর পড়ত না।

সবাই মনে করত এটি বুঝি ওই গাছের কাজ। আসলে তা নয়। অনেকক্ষণ ধরে নাক চেপে ধরে গাছ খুঁজতেই রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যেত। শহরে তো এ গাছ নেই। তাই চিকিৎসা করতে হবে আপনাকেই। অনেক সময় দেখা যায় কোনো কারণ ছাড়াই হঠাৎ করে নাক দিয়ে দরদর করে রক্ত পড়ছে। কারও নাক খোঁচানোর অভ্যাস থাকে। নাক খোঁচানোয়ও রক্ত পড়তে পারে।

এ ছাড়া চরমভাবাপন্ন আবহাওয়া, নাকে আঘাত লাগলে, উচ্চ রক্তচাপ থাকলে, এসপিরিন, ওয়ারফেরিন সেবন করলে, নাকে কোনো কিছু ঢুকলে, শ্বাসনালিতে ইনফেকশন হলে নাক দিয়ে রক্ত পড়তে পারে। রক্ত পড়া দেখলে ভয় পাবেন না। সোজা হয়ে একটু সামনের দিকে ঝুঁকে চেয়ারে বসে পড়ুন।

বৃদ্ধ ও শাহাদাত আঙুল দিয়ে নাকের দুই ছিদ্র জোরে বন্ধ করম্নন, মুখ দিয়ে শ্বাস নিন। এভাবে ১০ মিনিট ধরে রাখুন। এ সময় আঙুল ছাড়বেন না। প্রয়োজন হলে আরও বেশিক্ষণ চাপ দিয়ে ধরে রাখুন। এ সময় কপালে, নাকের চারপাশে বরফ ধরে রাখুন।

আশা করা যায় রক্ত পড়া বন্ধ হবে। রক্ত পড়াকালে শোবেন না। এতে রক্ত ফুসফুসে গিয়ে জটিল সমস্যা করতে পারে। রক্ত পড়া বন্ধ হলেও কয়েক ঘণ্টা নাক পরিষ্কার করবেন না, সামনে ঝুঁকে মাথা হৃৎপি-ের নিচের লেভেলে আনবেন না। এতে আবার রক্ত পড়া শুরম্ন হতে পারে।

যদি রক্ত ১৫-২০ মিনিটের বেশি সময় ধরে পড়তে থাকে তবে দেরি না করে পাশের হাসপাতালের নাক ও গলা বিভাগে চলে যান। চিকিৎসক নাকে প্যাক দিয়ে রক্ত বন্ধ করার ব্যবস্থা করবেন। নাকে আঘাত লাগায় রক্ত পড়া বন্ধ হলেও চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ নাকের হাড় ভেঙেছে কিনা তা দেখা জরম্নরি। বারবার রক্ত পড়লে নাক, কান ও গলা বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হোন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য