দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার রঘুনাথপুর দীঘিপাড়ার আদিবাসি পাড়ায় ব্যাটারি পোড়ানোর ধোয়ার বিষাক্ত গ্যাসে ৭ টি গরু ও ৭ টি ছাগলের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে। অসুস্থ হয়ে পড়েছে আদিবাসি শিশু ও বৃদ্ধসহ গ্রামের মানুষজন।এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী বরাবর অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, গত ৬ মাস পুর্বে গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা সদরের লিটন ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাদশা নামের ২ব্যাক্তি রঘুনাথপুর দীঘিপাড়ার আদিবাসী পাড়ার উত্তর ও দক্ষিণ পার্শ্বে ২টি ব্যাটারী পোড়ানোর জন্য কারখানা স্থাপন করেন।

ওই কারখানার বিষাক্ত গ্যাস সৃষ্টি হয়ে পরিবেশ দৃষিত হয়ে যায়। এ কারণে আদিবাসী পাউলুসের ২ টি গাভি,রাফাএলের ১ টি, খোকা মুর্মুর ১ টি, খাড়া মুর্মুর ১ টি, জালু হেম্রনের ১ টি, বাকরাই মুর্মুর ১ টি সহ ৭ টি গরু মারা যায়।

এছাড়াও লিটন হেম্রনের ২ টি, রবিন মুর্মুর ৩ টি, উপিন মুর্মুর ২ টি সহ ৭ টি ছাগল মারা যায়।ব্যাটারির মালিকরা রাত্রি কালিন ব্যাটারি আগুন পোরানোর ফলে ধোয়ার বিষাক্ত গ্যাসে পরিবেশ দৃষিত হয়ে আদিবাসিদের গরু,ছাগলের মৃত্যু ছাড়াও আদিবাসি পাড়ার শিশু বৃদ্ধসহ বসবাসরত লোকজন আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

ব্যাটারী পোড়ানো কারখানার মালিকদের নিকট ক্ষতি পুরণ ও প্রতিবাদ জানালে তারা রাফায়েল নামের এক আদিবাসীকে মারপিট করে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী বরাবর অভিযোগ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য