মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষে ৫ শিক্ষার্থী আহত হওয়ার ঘটনায় শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দিনাজপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কে দু’টি বাসে আগুন দিয়েছে।

বুধবার (২২ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জেরে পরিবহন শ্রমিকরা দিনাজপুর সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এতে বিপাকে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।

হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা জানায়, বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের পরিবহনকারী একটি বাস শহরের মহারাজা স্কুল মোড়ে তৃপ্তি পরিবহনের একটি বাসের সাইড দেয়াকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষ হয়। এতে সৌরভ, নিবির, মহিবুরসহ ৫ শিক্ষার্থী আহত হন। আহত শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৪ জনকে দিনাজপুর এম আব্দুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসটি ক্যাম্পাসে পৌঁছালে অন্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংবাদটি ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের সামনে দিনাজপুর-ঠাকুরগাঁও মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এ সময় পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে আসা “শাহী পরিবহন” ও দিনাজপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া “রায় পরিবহন” নামে দু’টি বাসে আগুন দেয় শিক্ষার্থীরা।

খবর পেয়ে দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নেভাতে গেলে ছাত্ররা তাদের ধাওয়া করে। পরে পুলিশের সহায়তায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। এ ঘটনার জেরে শ্রমিকরা দিনাজপুর থেকে রুটে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে দিনাজপুর মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. ফজলে রাব্বী জানান, একটি গাড়িকে সাইড দেয়াকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা দু’টি বাসে আগুন দিয়েছে। এ কারণে দিনাজপুর থেকে সব যানহাবন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

দিনাজপুর কোতয়ালী থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেদওয়ানুর রহিম জানান, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মহাসড়ক থেকে ছাত্রদের সরিয়ে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য