প্রথম অবস্থায় ব্যায়ামের পর মাংসপেশিতে ব্যথা হওয়া মানেই আপনার পরিশ্রম সার্থক হচ্ছে বলে ধরে নেওয়া হয়।

একথা ঠিক যে দীর্ঘদিন যেসব পেশিতে টান পড়েনি তাতে হঠাৎ টান পড়ার কারণেই এই ব্যথা হয়। তার মানে এই নয় যে প্রতিদিনই শরীরে ব্যথা হওয়ার পরেও ব্যায়াম করতেই থাকবেন।

চিকিৎসাববিজ্ঞানের তথ্য নিয়ে এই বিষয়ের উপর করা একটি স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, প্রথম অবস্থায় ব্যায়াম করতে গিয়ে পেশিতে হওয়া ব্যথা সাধারণত দুতিন দিনেই কমে যায়।

যদি না কমে তবে বুঝতে হবে অন্য কোনো সমস্যা হয়েছে। সেক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

কেনো হয়?
একটি নির্দিষ্ট মাংসপেশিকে লক্ষ্য করে ব্যায়াম করলে কিংবা দীর্ঘদিন পর কোনো পেশিতে টান পড়লে ওই পেশিতে ব্যথা হয়। ডাক্তারি ভাষায় একে বলা হয় ‘ডিলেইড-অনসেট মাসল সোরনেস’ (ডিওএমএস)। এ ধরনের ব্যথা অনেকসময় অসহ্য আকার ধারণ করতে পারে। তবে ব্যথা ভালো খারাপ দুরকম ইঙ্গিতই দিতে পারে।

যখন একটি নির্দিষ্ট পেশির উপর চাপ প্রয়োগ করা হয়, যেমন একটানা ৫০টি বুক ডন কিংবা লম্বা সময় দৌড়ানো পেশিতে ‘মাইক্রো-টিয়ার’ হয় বা সুক্ষ্মভাবে ছিঁড়ে যায়। যা ওই পেশিতে ব্যথা সৃষ্টি করে, পরে আরও অসহনীয় করে তুলতে পারে।

ব্যায়াম শুরুর প্রথমদিন ব্যথার কারণে ওই পেশিতে রক্ত সঞ্চালন কমে যায়। পাশাপাশি সারিয়ে তুলতে প্রয়োজনীয় হরমোন ‘এন্ডোরফিন’ এবং আমিষের সরবরাহও কমে যায়।

দ্বিতীয় দিন ওই পেশিতে ব্যথার কারণে তরলের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফলে আবারও ব্যায়াম করতে গেলে ওই পেশির উপর প্রচুর চাপ পড়ে।

ফলে ব্যথায় আক্রান্ত পেশির উপর চাপ প্রয়োগ করতে থাকলে ব্যথা ও পেশিতে সুক্ষ্ম ছেঁড়ার মাত্রাও বেড়ে যায়। ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার বেশি সময় ব্যথা না থাকলে চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। এর বেশি সময় ব্যথা থাকলে মারাত্বক কোনো সমস্যা যেমন, ‘র‌্যাবডোমেয়োলাইসিস’ হতে পারে। এই সমস্যায় রক্তে অতিরিক্ত আমিষ নিসৃত হতে থাকে।

মাংসপেশিতে ব্যথা না হলে যথেষ্ট ব্যায়াম করা হয়নি এই ধারণা ভুল। দুএক সপ্তাহ পরে ব্যথা না হওয়ার কারণ হল, শরীর ব্যায়ামের রুটিনের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছে। তার মানে এই নয় যে মেদ কমছে না বা আপনার শক্তি বাড়ছে না। আর ব্যথা একেবারেই ছেড়ে যাবে না, তবে পরিমাণে অনেক কম হবে।

এছাড়াও ব্যায়ামের আগে ও পরে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করলে মাংসপেশির ব্যথা কমবে অনেকটাই। তবে শরীর ব্যথা না হওয়া পর্যন্ত ব্যায়াম করার অভ্যাস অবশ্যই ত্যাগ করতে হবে।
কারণ দীর্ঘদিন মাংসপেশিতে ব্যথা থাকা ভবিষ্যতে মারাত্বক সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।
ছবি: রয়টার্স।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য