লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি শেষ পর্যন্ত বৈরুতে ফিরে গেছেন। সৌদি আরব সফরে গিয়ে এক টেলিভিশন ভাষণে নিজের পদত্যাগের কথা ঘোষণা করার ১৮ দিনের মাথায় তিনি নিজ দেশে ফিরলেন।

লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন প্রধানমন্ত্রী হারিরির পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেননি এবং তাকে বৈরুতে ফিরে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করার আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ (বুধবার) ভোররাতে নিজের ব্যক্তিগত বিমানে তিনি বৈরুত বিমানবন্দরে অবতরণ করলে লেবাননের পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা তাকে স্বাগত জানান। এর আগে তিনি সাইপ্রাসে সংক্ষিপ্ত যাত্রাবিরতি করে দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোস অ্যানাসতাসিয়াদসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

সাইপ্রাস সফরের আগে মঙ্গলবার সাদ হারিরি মিশর সফরে যান এবং সেখানে দেশটির প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আস-সিসির সঙ্গে বৈঠক করেন। কায়রোয় এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে হারিরি তার প্রতি সমর্থন জানানোর জন্য সিসি’কে ধন্যবাদ জানান।

একইসঙ্গে তিনি বলেন, বৈরুত পৌঁছার আগ পর্যন্ত তিনি নিজের পদত্যাগ নিয়ে কোন কথা বলবেন না। হারিরি বলেন, তিনি বুধবার লেবাননের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন।

এর আগে গত ৪ নভেম্বর নিজের পদত্যাগের কথা ঘোষণা করার পর টানা দুই সপ্তাহ রিয়াদে অবস্থান করেন হারিরি। এরপর গত শনিবার তিনি রিয়াদ থেকে প্যারিসে যান এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

লেবাননের বেশিরভাগ নাগরিক মনে করছেন, দেশটির ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর ক্ষতি করার জন্য সৌদি আরবের চাপের মুখে নিজের পদত্যাগের কথা ঘোষণা করেছিলেন সাদ হারিরি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য