মাহবুুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি শওকত মাহমুদ বলেছেন, সাংবাদিকদের কখনো সত্য প্রকাশে পিছপা হওয়া যাবে না। সত্য ঘটনাকে জাতির সামনে তুলে ধরতে হবে। জুলুমের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হতে হবে। রাজপথে নেমে দাবী আদায় করে নিতে হবে। এ জন্য ভেদাভেদ ভুলে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

শনিবার (১৮ নভেম্বর) সকালে দিনাজপুরে স্থানীয় একটি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুর আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শওকত মাহমুদ বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাধীনভাবে মত প্রকাশ করতে পারে না।

যখন মানুষের কথা বলার স্বাধীনতা থাকে না, তখন সাংবাদিকরা ঘরে বসে থাকতে পারে না। রাজনীতি না করে থাকতে পারে না। এ দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে মরহুম আতাউস সামাদসহ অনেক সাংবাদিক অবদান রেখেছেন। মত প্রকাশের স্বাধীনতার ব্যাপারে আমরা কখনো কারো সাথে কোন প্রকার আপোষ করবো না।

শওকত মাহমুদ বলেন, বর্তমানে দেশে স্বাধীন গনমাধ্যম নেই। আছে সরকারের প্রচারমাধ্যম। বিরোধী মতের কন্ঠরোধ করতে এই সরকারের আমলে আমার দেশ, দিগন্ত টিভি, চ্যানেল ওয়ান, সিএসবিসহ অনেক গনমাধ্যম বন্ধ করা হয়েছে। বিএনপি মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে বলেই কোন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানী করেননি। কিন্তু এই সরকারের আমলে আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানসহ অনেক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে, জেলে পুড়ে নির্যাতন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা সাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাস করি না। সরকারী দলের নেতাকর্মীরা হিন্দুদের বাড়ী-ঘরে আগুন দিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে। আর এর দায় বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের উপর চাপিয়ে দেয়।

দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি জিএম হিরু’র সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএফইউজে’র মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহফিজুল ইসলাম রিপন। ইউনিয়নের সদস্য আতিউর রহমান আতিকের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় স্থানীয় সাংবাদিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ওএফএম মোর্শেদ-উল-আলম, মো. সেকান্দর আলী কাবুল, মো. তাজুল ইসলাম, মো. মোশাররফ হোসেন প্রমূখ।

বিএফইউজে’র মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ বলেন, গনতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত হওয়ার যোগ্যতা যাদের নেই, তারাই ক্ষমতার অপব্যবহার করে ও অস্ত্রের জোরে দেশপ্রেমিক নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অবিশ্বাস্য ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে। আইনের অপব্যবহার করে তাদের কন্ঠরোধ করছে। বিচার বিভাগের স্বাধীনতা হরন করেছে। তিনি বলেন, তারা শুধু ব্যাংক আর শেয়ার বাজার লুট নয়, রাষ্ট্রীয় কোষাগার পর্যন্ত লুট করেছে। এর প্রতিবাদ না করলে আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে জবাবদিহি করতে হবে।

বিএফইউজে’র সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে। আমাদের সামনে সূর্যটি ডাকাতের হাতে বন্দি। এই সূর্যটাকে ছিনিয়ে আনতে হবে। গণমাধ্যমের স্বাধীনতা পুণরুদ্ধারে আন্দোলনে শরিক হতে হবে। মুক্ত গণমাধ্যম গড়ে তুলতে হবে।

মতবিনিময় সভায় সাংবাদিক ইউনিয়ন দিনাজপুরের (রেজি ঃ নং-রাজ-২৯৩৬) সকল সদস্যসহ বিভিন্ন উপজেলা হতে আগত তৃণমূলের সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে শওকত মাহমুদ দিনাজপুর জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এ সময় সরকারের জুলুম নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান। সভায় জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক সাবেক রেজিনা ইসলাম, আকতারুজ্জামান মিয়া, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি মকশেদ আলী মঙ্গলিয়া, সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার আহবায়ক অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলামসহ বিএনপির অন্যন্যা নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য