দিনাজপুরের বীরগঞ্জে মোঃ শরীফ (৩৮) নামে এক গরু ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। এ ব্যাপারে নিহতের ভাই মোঃ শাহীন আলম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামে আসামী করে বীরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মোঃ বোরহান উদ্দিন (৪০) এবং মোঃ কাশেম আলী (৪৫) নামে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

মোঃ শরীফ উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের আরাজী মিলনপুর গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে এবং আটক মোঃ বোরহান উদ্দিন একই এলাকার মৃত গণি ঢালীর ছেলে ও মোঃ কাশেম আলী একই এলাকার মকছেদ আলীর ছেলে।

শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের মিলনপুর ঝলঝলি পুকুর সংলগ্ন এলাকায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

নিহতের ভাই মোঃ শাহীন আলম জানান, মটর সাইকেল নিয়ে শনিবার বিকেল ব্যবসায়ীক কাজে ঠাকুরগাঁও জেলার খোঁচাবাড়ী হাট যাওয়ার উদ্যেশ্যে বেড়িয়ে যায়। এরপর সন্ধ্যায় এলাকার লোকজনের কাছে ঝলঝলি পুকুর সংলগ্ন এলাকায় রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকার সংবাদ শুনে সেখানে ছুটে যাই। ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ রতন ঢালীর সহযোগিতায় উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। ।

শিবরামপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ রতন ঢালী জানান, ঠাকুরগাঁও জেলার খোঁচাবাড়ী হাট হতে সন্ধ্যায় বাড়ীর কাছে রথবাজারে আসে। সেখানে হোটেলে আমার পাশেই বসে চা পান সন্ধ্যা আনুমানিক প্রায় ৭টায় মটর সাইকেল যোগে নিজ বাড়ীর উদ্যেশ্যে রওয়ানা হয়। বাজার হতে ১কিলোমিটার দুরে মিলনপুর ঝলঝলি পুকুর সংলগ্ন রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে পথচারীরা আমাকে সংবাদ দেয়। আমি ছুটে গিয়ে পরিবারের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বীরগঞ্জ থানার এসআই মশিউর রহমান জানান, নিহতের ডানপাশে বুকের উপরের অংশে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহৃ রয়েছে। ঘটনাস্থলে মটর সাইকেল এবং মোবাইল ফোন পড়ে ছিল। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মৃত্যু হতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই মোঃ আতিক জানান, ঘটনাস্থলে মটর সাইকেল এবং মোবাইল ফোন পড়ে থাকায় বিষয়টি ছিনতাই প্রচেষ্টা বলে মনে হচ্ছে না। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মোঃ বোরহান উদ্দিন (৪০) এবং মোঃ কাশেম আলী (৪৫) নামে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। আমার বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করেছি। সে তথ্য যাচাই-বাচাই করে মামলার তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। কারণ নিরাপরাধ কেউ যেন হয়রাণীর স্বীকার না হয়। এই হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করে প্রকৃত আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

বীরগঞ্জ থানার ওসি আবু আককাছ আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সুরতহাল শেষে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের ভাই মোঃ শাহীন আলম বাদী হয়ে রবিবার সকালে বীরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। মামলা নম্বর-০৮।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য