আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট থেকে: লালমনিরহাটে চলমান মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার ফরম পূরণে অনেক বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয়ের উন্নয়ন ফি, বেতন ও কোচিং’র নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিভিন্ন কৌশলে অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে। ফলে বন্যা কবলিত লালমনিরহাট জেলার অভিভাবকরা এ নিয়ে বিপাকে পড়েছে।

জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা মহিমা রঞ্জন স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানায়, এসএসসি পরীক্ষার ফরম পুরন ও কোচিং ফি বাবদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২ হাজার ৫ শত টাকা ও মানবিক-বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২ হাজার ৪ শত টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। অথচ বোর্ডের নির্ধারিত ফি হলে সব কিছু মিলে মানবিক ও বানিজ্য বিভাগে ১ হাজার ৬ শত ৮৫ টাকা, বিজ্ঞান বিভাগে ১ হাজার ৭ শত ৮৫ টাকা নিতে পারেন।

জানা গেছে, চলতি বছর ওই বিদ্যালয়ে থেকে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগে ১৫১ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেবে। নাম প্রকাশের শর্তে ওই বিদ্যালয়ের কয়েক জন পরীক্ষার্থী জানায়, অতিরিক্ত অর্থ দিতে না পারায় ফরম পূরণ করতে পারছে না। প্রতি বছরই এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে গলাকাটা অর্থ আদায় করছে শিক্ষকরা। তারা বোর্ডের কোনও দিক-নির্দেশনা না মেনে নিজেদের নিয়মে পরীক্ষার ফরম পূরণের টাকা আদায় করছে। তবে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান আসাদ ফরম পুূরণের নামে অতিরিক্ত টাকা গ্রহনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

একই অবস্থা জেলার অধিকাংশ বিদ্যালয়ে। বিদ্যালয় উন্নয়ন ফি, বেতন ও কোচিং’র নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিভিন্ন কৌশলে অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে। বিদ্যালয় গুলোতে চলছে ফরম পূরণের নামে টাকা আদায়ের বাণিজ্য।

কালীগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোছা: আফরোজা বেগম জানান, অতিরিক্ত ফি আদায়ের বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে কোনো বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যদি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে বোর্ড নির্ধারিত ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত ফি আদায় করে তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য