ভবিষ্যতে আঞ্চলিক স্বাধীনতার প্রশ্নে গণভোট অনুষ্ঠান করতে দেওয়ার ব্যবস্থা চালু করতে পারে স্পেন। এ লক্ষ্যে সাংবিধানিক পরিবর্তন আনার কথা ভেবে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলফনসো দাস্তিস।

বিবিসি’ কে দাস্তিস বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে দেশব্যাপী একটি ভোট আয়োজন করা হতে পারে।

কাতালুনিয়া সংকটের প্রেক্ষাপটে স্পেন সরকার নতুন ওই উদ্যোগ নেওয়ার কথা বিবেচনা করে দেখছে। কাতালুনিয়া একতরফাভাবে স্বাধীনতা ঘোষণা করায় স্পেন সেখানকার আঞ্চলিক সরকারকে বরখাস্ত করে সরাসরি মাদ্রিদের শাসন চালুর পদক্ষেপ নেয়।

স্পেনের সাংবিধানিক আদালত কাতালুনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণাকে ‘অসাংবিধানিক’ বলে রায় দিয়ে সেটি বাতিল করে। কাতালান নেতা কার্লেস পুজদেমন ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ আনা হয়। সাবেক আঞ্চলিক নেতাদের আটকের প্রতিবাদে কাতালুনিয়ায় স্বাধীনতা-পন্থিদের বিক্ষোভও হয়েছে। ঘণীভূত হয়েছে সংকট।

এ পরিস্থিতির মধ্যে বিবিসি কে স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাস্তিস বলেছেন, “কাতালুনিয়ার কিছু মানুষের আশা-আকাঙ্খার মূল্য দেওয়ার বিষয়টি মাথায় রেখে সংবিধান পরিবর্তনের পথ খোঁজার জন্য আমরা একটি পার্লামেন্টারি কমিটি গঠন করেছি।”

তিনি আরও বলেন, “এখানে একটি রাজনৈতিক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে যেদিকে দৃষ্টি দেওয়া দরকার বলে আমরা স্বীকার করি। কিন্তু যে কোনও কিছুর ক্ষেত্রেই সিদ্ধান্তটি যে সব স্পেনীয়র কাছ থেকেই আসতে হবে সেটি পরিষ্কার।”

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ ভাষ্য কাতালুনিয়ায় বিক্ষোভ করে আসা বিচ্ছিন্নতার পক্ষের মানুষদের প্রতি শান্তির বার্তার নিদর্শন জলপাই শাখা বলেই মনে করা হচ্ছে।

তিনি যে কথা বলেছেন তাতে করে স্পেনের সংবিধান পরিবর্তন করতে সম্ভাব্য গণভোটের প্রস্তাবের ইঙ্গিত ছাড়াও এর মধ্য দিয়ে ভবিষ্যতে কাতালুনিয়ার স্বাধীনতার জন্য বৈধভাবে গণভোট করার সম্ভাবনাও স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য