মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে ট্রাফিক পুলিশের অমানবিক হামলায় জেনারেল হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণীর দুই কর্মচারীসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালের কর্মচারী মো. ওবাইদুল ইসলামকে (৪৫) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এই ঘটনার জেরে দোষি ট্রাফিক পুলিশের বিচারের দাবীতে হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কমচারীরা ৩ ঘন্টা কর্মবিরতি পালন করে। অপরদিকে ঘটনার সাথে জড়িত ট্রাফিক পুলিশকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে।

বুধবার (৮ নভেম্বর) সকাল ১১টার সময় জেনারেল হাসপাতাল মোড়ে এই ঘটনাটি ঘটে। ট্রাফিক পুলিশের হামলায় আহত চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী মো. ওবাইদুল ইসলাম শহরের পাটুয়াপাড়া এলাকার মৃত আফতাব উদ্দিনের ছেলে।

জেনারেল হাসপাতালের কয়েকজন কর্মচারী জানান, বুধবার সকালে জেনারেল হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী মো. ওবাইদুল ইসলাম বাইসাইকেলযোগে অফিসে আসছিলেন। হাসপাতালের সামনে সিভিল সার্জন অফিসের নিকট এসে পৌছলে একটি বাসকে সাইট দিতে গিয়ে সাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মো. ওবাইদুল ইসলাম সেখানে কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ মো. জামানের উপর পড়ে যায়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ট্রাফিক পুলিশ পাশে দাড়িয়ে থাকা এক আনসার ভিডিপির সদস্যের হাত থেকে লাঠি নিয়ে মো. ওবাইদুল ইসলামকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। এ সময় সিভিল সার্জন আিফসের চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারী মো. নজরুল ইসলাম ও পাশের মহিলা চা দোকানদার মেরিনা তাঁকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে ট্রাফিক পুলিশ জামান তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে হাসপাতালের অন্যান্য কর্মচারীরা ট্রাফিক পুলিশ মো. জামানকে আটক করে হাসপাতারের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. পারভেজ সোহেল রানার কক্ষে নিয়ে আসে এবং আহত হাসপাতালের কর্মচারী ওবাইদুল ইসলামকে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় হাসপাতালে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে তারা কাজ বন্ধ করে জরুরী বিভাগের সামনে এসে অবস্থান নেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপে ট্রাফিক সার্জেন্ট আব্দুল বারী এসে ট্রাফিক পুলিশ জামানকে ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে যান।

বেলা ১২টার সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ আশরাফ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসারের কক্ষে জরুরী বৈঠকে বসেন। বৈঠকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ আশরাফ জানান, ট্রাফিক পুলিশ জামানকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং এই ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মামলা করতে চাইলে তাও গ্রহণ করা হবে। এই আশ^াসের প্রেক্ষিতে দুপুর ১ টার সময় হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্ম বিরতি প্রত্যাহার করে কাজে যোগ দেয়।

বৈঠকে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. পারভেজ সোহেল রানা, দিনাজপুর শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, জেনারেল হাসপাতাল চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতি জেলা শাখার সভাপতি আব্দুর রহিম, সাধারণ সম্পাদক ফরিদ হোসেন ও হাসপাতাল শাখার সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাকদ মাসুদ মিয়াসহ হাসপাতালের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ আশরাফ ট্রাফিক পুলিশ মো. জামানকে বরখাস্ত করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য