‘লাল জমিন’ নাটককে সারা দেশে পৌঁছে দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নিয়েছে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এ কাজের জন্য ১১ লাখ টাকা অনুদান পেয়েছে নাটকটির প্রযোজনা সংগঠন শূন্যন রেপার্টরি থিয়েটার।

সম্প্রতি এই সংগঠনের প্রধান নির্বাহী মোমেনা চৌধুরীর হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এই প্রকল্পের আওতায় গত ৯ অক্টোবর রাজধানীর রাজারবাগ স্কুল অ্যান্ড কলেজে ‘লাল জমিন’ নাটকের প্রথম প্রদর্শনী হয়েছে। আর ১৬ অক্টোবর দ্বিতীয় প্রদর্শনী হয় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটারে।

মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধোত্তর বাংলাদেশে এক নারীর সংগ্রামী জীবনের গল্প নিয়ে নাটকটি লিখেছেন মান্নান হীরা, নির্দেশনা দিয়েছেন সুদীপ চক্রবর্তী। ‘লাল জমিন’ নাটকে একক অভিনয় করছেন মোমেনা চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আগামী বছর জুন মাসের মধ্যে দেশের ৪৪টি জেলা এবং কলেজে নাটকটির প্রদর্শনী করব। আমরা কলেজ পর্যায়ের ছাত্রছাত্রীদের বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। তরুণ প্রজন্মের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পৌঁছে দেওয়ার জন্য আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি।’

‘লাল জমিন’ নাটকের জন্য অনুদানের চেক মোমেনা চৌধুরীর হাতে তুলে দেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়াকোনো একটি নাটককে সারা দেশে পৌঁছে দেওয়ার জন্য এ ধরনের অনুদানের কথা তেমন শোনা যায় না। এর জন্য সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানান মোমেনা চৌধুরী। বললেন, ‘গত কয়েক বছর আমি এই স্বপ্নটি দেখেছি। আমাদের এই উদ্যোগকে তারা স্বাগত জানিয়েছে। তা বাস্তবায়নে সহযোগিতা করছে।’

মোমেনা চৌধুরী জানান, ১১ লাখ টাকার মধ্যে ১ লাখ ৯৮ হাজার টাকা ভ্যাট আর ট্যাক্স বাবদ কেটে নেওয়া হয়েছে। বাকি টাকা দিয়ে পুরো প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে হবে। এই প্রকল্পের আওতায় ২৪ নভেম্বর টাঙ্গাইল, ২৫ নভেম্বর মানিকগঞ্জ, ২৬ নভেম্বর গাজীপুর আর ২৭ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জে ‘লাল জমিন’ নাটকের প্রদর্শনী হবে।

‘লাল জমিন’ নাটকে মোমেনা চৌধুরী। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়ামোমেনা চৌধুরী অভিনীত ‘লাল জমিন’ নাটকটি এরই মধ্যে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের সহযোগিতায় সাতটি কলেজে মঞ্চস্থ হয়েছে।

‘লাল জমিন’ নাটকের প্রথম প্রদর্শনী হয়েছে ২০১১ সালের ১৯ জুলাই। আজ সন্ধ্যায় রাজধানীর বেইলি রোডের বাংলাদেশর মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহীম মিলনায়তনে নাটকটির ১২৮তম প্রদর্শনী হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য